You are here
Home > Don't Miss > রান্নাবান্না ও রূপচর্চা > চোখের নিচে কালো দাগ দূর করার ঘরোয়া পদ্ধতি

চোখের নিচে কালো দাগ দূর করার ঘরোয়া পদ্ধতি

চোখের নিচে কালো দাগ দূর করার ঘরোয়া পদ্ধতি, চোখের কালি দূর করার উপায়

চোখের নিচে কালো দাগ দূর করার ঘরোয়া পদ্ধতি: সৌন্দর্য বর্ণনার একটি খুব গুরুত্বপূর্ণ অংশ হলো আমাদের চোখ। তবে সৌন্দর্য প্রদান করার পাশাপাশি চোখে আমাদের শরীরের অত্যন্ত স্পর্শকাতর অঙ্গও বটে। সেই চোখের নিচে যখন কালো দাগ পড়ে তখন তা যেমন সৌন্দর্যহানি ঘটায়, তেমনি সেই দাগ বেশিদিন অযত্নের সাথে ফেলে রাখলে চোখের চারপাশের ত্বকের ক্ষতিও করে।

কর্মব্যস্ততা, কাজের অত্যন্ত চাপের ধকল সামলে উঠে অনেক সময়েই আমাদের পক্ষে নিজেদের প্রতি যে যত্ন নেবো তা সম্ভব হয়ে ওঠে না। ফলে একবার যদি চোখের নিচে এই কালো দাগ পড়ে যায়, সেই সমস্যা ক্রমশই বাড়তে থাকে যদি আমরা কোনো দ্রুত পদক্ষেপ না নিতে পারি।

পাশাপাশি চোখের নিচে কালো দাগ দূর করার উপায় হিসেবে বাজারে হরেক রকম প্রসাধনী দ্রব্যের সমাহার দেখা গেলেও, অত্যন্ত তাদের মধ্যে অনেক ক্ষতিকারক রাসায়নিক উপাদান এর ব্যবহার ফলে ত্বকের উপর তার দীর্ঘমেয়াদি প্রভাব পড়ে যা আসলে শরীরের পক্ষে হানিকারক। তাই আজকের সময়ে অনেকেই বেঁচে নিচ্ছেন চোখের নিচে কালো দাগ দূর করার ঘরোয়া পদ্ধতি, যার উপাদান সামগ্রী আমাদের হাতের কাছেই পাওয়া যায়।

আজকের এই ব্লগটিতে আমরা নিয়ে এসেছি সেইরকমই কিছু চোখের কালি বা ডার্ক সার্কেল দূর করার উপায়। আসুন সেগুলি দেখেনি।

চোখের নিচে কালো কেন হয়?

চোখের নিচে কালো দাগ পড়া আজকাল অত্যন্ত পরিচিত একটি ব্যাপার হয়ে উঠেছে। পুরুষ-নারী নির্বিশেষে এই সমস্যা দেখা যাচ্ছে। ফলস্বরূপ, আপনাকে দেখতে পারে অনেক বেশি বয়স্ক। বাইরে থেকে খুব সাধারণ মনে হলেও বিশেষজ্ঞদের মতেএর কারণ অনেক সুদূরপ্রসারিও হতে পারে। আসুন আমরা দেখেনি সেই কারণসমূহ-

অপর্যাপ্ত ঘুম

অপর্যাপ্ত ঘুম বা রাত্রে অধিক সময় ধরে জেগে থাকার অভ্যাস এমনকি চরম অবসন্নতা হেতু আপনার চোখের নিচে কালো কালী পড়ার সমস্যা তৈরী হতে পারে। অপর্যাপ্ত ঘুম ত্বককে করে তোলে নিস্তেজ এবং ফ্যাকাসে, যার ফলে ত্বকের নীচের রক্তনালীগুলি ও কালো টিস্যু ক্রমশ দৃশ্যমান হয়ে ওঠে।তাছাড়াও ঘুমের অভাবের কারণে আমাদের চোখের নিচে একরকম তরল পদার্থ জমা হয়, যাকে আমরা সাধারণ ভাষায় চোখের নিচের থলে বলে থাকি।

বয়সজনিত কারণ

চোখের নিচে কালো দাগ পড়ার আরও একটি বড়ো কারণ হতে পারে আমাদের বয়স। বয়স বেড়ে যাওয়ার সাথে সাথে আমাদের ত্বকও ক্রমশ পাতলা হয়ে যেতে থাকে। ফলত, ক্রমবর্ধমান বয়সের সঙ্গে ত্বকের সামঞ্জস্য বজায় রাখতে গিয়ে দরকারি চর্বি এবং কোলাজেনের পরিমাণও ক্রমে হ্রাস পেতে থাকে। ফলে ত্বকের নীচে থাকা রক্তনালীগুলি আস্তে আস্তে দৃশ্যমান হয়ে ওঠতে থাকে ও চোখের তোলার অংশটি কালো হয়ে পড়ে।

চোখের ওপর বাড়তে থাকা চাপ

আমাদের বর্তমান কর্মজীবনে বেশিরভাগ সময়টাই কেটে যায় কম্পিউটার এর সামনে চোখ রেখে। কম্পিউটার স্ক্রিনে দিকে তাকিয়ে একটানা কাজ করার ফলে চোখের অবধারিতভাবে তৈরী হয় অতিরিক্ত চাপ। এর পাশাপাশি টিভির দিকে বেশিক্ষন তাকিয়ে থাকলেও এই চাপ তৈরী হতে পারে। এর ফলে আমাদের চোখের চারপাশে থাকা রক্তনালীগুলি ক্রমশ বড়ো হতে থাকে এবং চোখের তোলার ত্বক হয়ে ওঠে কালো।

ডিহাইড্রেশন

ডাক্তারদের মতে পানিশূণ্যতা, যাকে আমরা ইংরেজিতে ডিহাইড্রেশন বলে থাকি, চোখের তলায় কালো দাগ পড়ার অন্যতম প্রধান কারণ। শরীরে যদি পর্যাপ্ত পরিমাণে জলের সরবরাহ না হয়ে থাকে, তাহলে চোখের চারপাশের ত্বক ক্রমশ নিস্তেজ এবং কালো হতে শুরু করে।

জিনগত কারণ

চোখের তলায় কালো দাগ পড়ার পিছনে থাকতে পারে জিনগত কারণও। শৈশবের শুরুতে যদি এই সমস্যা দেখা দেয় তাহলে বিশেষজ্ঞরা বলছেন এই ক্ষেত্রে উত্তরাধিকারসূত্রে এই বৈশিষ্ট্য প্রাপ্ত হবার সম্ভাবনাই বেশি। কিছু ক্ষেত্রে এই কালো দাগ বয়স বাড়ার সাথে সাথে আস্তে আস্তে অদৃশ্য হয়েও যেতে পারে।

চোখের নিচে কালো দাগ পড়া কোন রোগের লক্ষণ?

আমরা আগে যদিও আলোচনা করলাম যে কি কি কারণে চোখের তলায় কালী পড়তে পারে, তবে সেগুলি ছাড়াও চোখের নীচে কালো দাগ পড়ার পিছনে বিশেষজ্ঞদের অনেকেই মনে করেন আমাদের ভিতরে বাসা বেঁধে থাকা গভীর অসুখও কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে। সেই সূত্রে চিৎিসকরা কিছু রোগ এর কথা উল্লেখ করেছেন, যার মধ্যে উঠে এসেছে যক্ষ্মা বা টিবি, ডায়াবেটিস, হাইপোথাইরয়েডিজম, রক্তাল্পতা ও ক্যান্সার এর মতো নাম।

চোখের নিচে কালো দাগ নিরাময় করার কিছু ঘরোয়া পদ্ধতি:

ঘরোয়া কিছু উপাদান যা হয়তো আপনার হাতের কাছেই আছে, সেগুলি সঠিক উপায়ে ব্যবহার করে আপনি মুক্তি পেতে পারেন চোখের তলায় পরে যাওয়া কালো দাগের হাত থেকে। চোখের নিচে কালো দাগ দূর করার উপায় হিসেবে রান্নাঘরে থাকা নানা দ্রব্য সামগ্রীর সহায়তায় তৈরী করুন ঘরোয়া প্যাক, ফল মিলবে কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই। ব্যবহার করার আগে ত্বকের অন্য যে কোনও অংশে লাগিয়েও প্যাচ টেস্ট করে নিন। তবে বলে রাখা ভালো এইসব কিছুর সাথে সাথে দরকার পরিমাণ মতো বিশ্রাম।

আলুর খোসা

আলুর চামড়াতে কিছু প্রাকৃতিক বৈশিষ্ট্য রয়েছে যা চোখের তলায় কালো দাগকে ফিকে করে। এর জন্য আপনারা মাঝারি আকারের আলু নিন, এর ত্বক খোসা ছাড়ান, এইবার আলুটিকে পাতলা টুকরা করে কাটুন। এবার এই টুকরো আলু আধা ঘন্টার জন্য ফ্রিজে রেখে দিন। এর পরে, একটি করে কাটা টুকরোগুলি নিয়ে সরাসরি আপনার চোখের উপরে রাখুন। এখন কমপক্ষে 20 মিনিটের জন্য অপেক্ষা করুন। এই প্রক্রিয়াটি কার্যকরভাবে চোখের নীচের কালো দাগ হ্রাস করতে সহায়তা করবে।

আরও পড়ুন – ফর্সা হওয়ার সহজ উপায়: ফল পাবেন মাত্র ৭ দিনে

বিকল্পভাবে, আপনি আলু টুকরো টুকরো করে তার থেকে রসটি বের করে নিন। এটি চোখের চারপাশে লাগিয়ে ম্যাসাজ করুন। এই প্রক্রিয়াটি রাতের বেলা প্রয়োগ করলে সুবচেয়ে কার্যকরী হয় সম্ভব। এটি সারা রাত রেখে দিন এবং পরের দিন আপনার মুখটি ধুয়ে ফেলুন।

শশা

আলুর মতো, শসাও আপনার চোখের নীচের কালো দাগ অপসারণ করতে কার্যকর। আপনারা চোখের নিচে কালো দাগ দূর করার ঘরোয়া পদ্ধতি হিসেবে অন্যতম কার্যকর প্রতিকার হিসাবে এই উপকরণটি দেখতে পারেন। একটি শসা নিন এবং টুকরো টুকরো করে কাটুন। আপনার চোখের উপরে টুকরো গুলি রেখে দিন 20 থেকে 25 মিনিটের জন্য। এটি কালো দাগগুলিকে হ্রাস করতে এবং তাদের উপস্থিতি রোধ করতে সহায়তা করবে। আপনি যদি অনেক রাত অবধি কাজ করছেন বা খুব স্ট্রেসড হয়ে থাকেন, তবে প্রতিদিন এই প্রতিকারটি ব্যবহার করলে যেমন এই সমস্যার প্রতিকারও হবে আবার পুনরায় এই দাগ ফায়ার আসাকেও রোধ করবে। বিকল্প পদ্ধতি হিসেবে আপনি চোখের নীচে লোশনের মতো শসার রসও প্রয়োগ করতে পারেন। এটি আরও ভাল ভাবে কাজ করতে যদি আপনি এটি চোখের তলায় প্রয়োগ করে সারা রাতের জন্য লাগিয়ে রাখতে পারেন।

টমেটো

টমেটো হল নিত্য ব্যবহার্য খাদ্য উপকরণ বা ফল যা ভারতীয় যেকোনো পরিবারেই ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হয়। আমাদের অনেকেরই ধারণার বাইরে যে পুরুষ এবং মহিলাদের জন্য চোখের নিচে কালো দাগ দূর করার উপায় হিসেবে এই ফলটি কতটা কার্যকর হতে পারে। এর জন্য আপনার কেবলমাত্র একটি মাঝারি আকারের টমেটো প্রয়োজন। একটি টমেটো নিয়ে সেটিকে অর্ধেক করে কেটে নিয়ে চেপে রস বের করুন। চোখের নীচে সুতির প্যাড বা আপনার পরিষ্কার আঙ্গুলের সাহায্যে রসটি প্রয়োগ করুন। এই প্রক্রিয়াটি সবচেয়ে ভালো কাজ করতে পারে যদি আপনি সারা রাত এই রসটি চোখের তলায় লাগিয়ে রাখতে পারেন। পরের দিন সকালে উঠে জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এই প্রতিকারটি আপনার সামগ্রিক ত্বকের টোনও হালকা করবে।

অ্যালোভেরা জেল

অ্যালোভেরা হল এমন একটি উদ্ভিদ যা বিভিন্ন উদ্দেশ্যে ব্যবহৃত হয়ে যার মধ্যে একটি চোখের তলায় কালী দূর করার উপায় হিসেবে আপনি ব্যবহার করতে পারেন। এই সম্যস্যা প্রতিকারের জন্য আপনার প্রয়োজন অ্যালোভেরা জেল। আপনার বাড়িতে যদি এরকম একটি গাছ থাকে তবে তার থেকে সরাসরি রসটি বের করে নিয়ে ব্যবহার করুন। এই প্রতিকারের জন্য, আপনাকে প্রতি রাতে অ্যালোভেরা জেল লাগাতে হবে চোখের নিচে কালো দাগগুলির উপর। পর্যায়ক্রমে, আপনি এলোমেলো ভেরার জেলটিতে লেবুর বা আলুর রস খানিকটা প্রয়োগ করতে পারেন। এটি চোখের নিচে কালো দাগগুলি আরো তাড়াতাড়ি হ্রাস করতে সাহায্য করবে।

চোখের তলায় কালো দাগ দূর করার জন্য কি কি খাবার খেতে পারেন?

চোখের নিচে কালো দাগ দূর করার ঘরোয়া পদ্ধতি যেমন আমরা কিছু আলোচনা করলাম, তার পাশাপাশি এটাও উল্লেখযোগ্য যে চোখের এর স্বাস্থ্য এর জন্য ভাল ডায়েট থাকাও জরুরী। আপনার চোখ উজ্জ্বল এবং চোখের নিচে কালো দাগ দূর করতে কিছু উপযোগী খাবারের কথা নিচে বলা হলো-

ভিটামিন-A সমৃদ্ধ খাবার

আমরা সকলেই জানি ভিটামিন-A চোখের দৃষ্টি এবং চোখের স্বাস্থ্যের জন্য কার্যকর। ভিটামিন-A সমৃদ্ধ ফল এবং সবজি চোখের ত্বকের নিচের অংশ উজ্জ্বল হওয়ার জন্য উপযুক্ত। এই জাতীয় খাবারগুলি আপনার চোখের নীচের ফোলা অংশও কমাতে সাহায্য করে। ভিটামিন-A সমৃদ্ধ খাবার হিসেবে আপনি সবুজ শাকসব্জী, আম, পেঁপে, কুমড়ো এবং বাদামের মতো শুকনো ফল জাতীয় খাবার রাখতে পারেন।

ভিটামিন-E সমৃদ্ধ খাবার

ভিটামিন-E সমৃদ্ধ খাবারগুলি শুধুমাত্রই চোখের নিচে কালো দাগ দূর করার উপায় হিসেবে নয়, সর্বোপরি আপনার সুন্দর ত্বক প্রদান করার ক্ষেত্রেও সাহায্য করে। বাদাম, চিনাবাদাম, হ্যাজনেল্ট এর মতো বাদামের মধ্যে আপনি পেতে পারেন প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন-E। এছাড়াও আপনার প্রতিদিনের ব্যবহারের শাক-সবজির মধ্যে ব্রোকলি এবং পালং শাকের মতো সবুজ শাক রাখার চেষ্টা করুন যার মধ্যে প্রচুর পরিমানে ভিটামিন-E থাকে।

তরমুজ

তরমুজের 90% জল যা আপনার শরীরকে হাইড্রেটেড রাখতে সাহায্য করে। এটিতে অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট রয়েছে যা চোখের সুস্বাস্থ্যের পক্ষে সহায়তা করে এবং আপনার চোখের কালি দূর করার উপায় হিসেবে খুবই উপাদেয়।

বিটরুট

বিটরুট ভিটামিন সি এবং ম্যাগনেসিয়ামের পাশাপাশি ফোলেট বা আয়রনে সমৃদ্ধ একটি উৎস। এই ফলটি আপনাকে চোখের তলায় কালো দাগ অপসারিত করে একটি সুস্থ ত্বক প্রদান করে।

তাহলে আজকের উপরোক্ত আলোচনা থেকে আমরা জেনে নিলাম চোখের নিচে কালো দাগ দূর করার উপায় হিসেবে কিভাবে খুব সহজেই ঘরোয়া পদ্ধতিতে আমরা চোখের কালির হাত থেকে মুক্তি পেতে পারি। তাহলে আর দেরি না করেই এই উপায়গুলির মাধ্যমে এই সমস্যা নিরাময় করুন, চোখের ত্বকের জৌলুস বাড়ান এবং নিজেকে প্রদান করুন সুস্থ শরীর।

Leave a Reply

Top