You are here
Home > Don't Miss > রান্নাবান্না ও রূপচর্চা > পেডিকিউর মেনিকিউর করুন এবার বাড়িতেই দেখুন সহজ পদ্ধতি

পেডিকিউর মেনিকিউর করুন এবার বাড়িতেই দেখুন সহজ পদ্ধতি

পেডিকিউর মেনিকিউর

নারী হল রূপে লক্ষী, গুনে সরস্বতী সর্বগুনে সম্পন্না। মেয়েদের কে আমরা মা দুর্গার সাথে তুলনা করে থাকি। কারন সংসারের কর্ত্তীর পদ থেকে শুরু করে অফিসের ম্যানেজার পদের দায়িত্ব দশ হাতে সামলান তারা। কিন্তু সংসারের খেয়াল রাখতে গিয়ে, অফিসের কাজের চাপে নিজের শরীরে যত্ন নেওয়া প্রায় হয়ে ওঠে না সময়ের অভাবে। প্রতিনিয়ত বাইরের ধুলো, মাটি, ধোঁয়া তাঁদের ঘিরে রেখেছে, যার ফলে ত্বক যায় শুকিয়ে, হাতে পায়ে আসে রুক্ষতার ছোঁয়া, কালো হয়ে যাওয়া, করা পড়া এগুলো প্রায় হয়েই থাকে। কিন্তু সময় করে পার্লারে যাওয়া হয়ে ওঠে না। তাই অনেকেই বাড়িতে ফুরসত পেলেই বেসনের প্রলেপ কিংবা বাড়ির তৈরি প্যাক দিয়ে মুখ পরিষ্কার করেন। কিন্তু শুধু মুখের যত্ন নিলে হবে? সাথে নিজের হাত ও পা এর ও যত্ন নিতে হবে। কিন্তু তার জন্য পেডিকিউর মেনিকিউর জরুরি যা সম্ভব একমাত্র পার্লারে। তাহলে কি ভাবে করবেন এসব? চিন্তার কারন নেই বাড়িতে বসেই এখন পেডিকিউর মেনিকিউর সম্ভব ।

আপনাদের মতো ব্যস্তজীবী মেয়েদের জন্যই আজ আমরা নিয়ে এসেছি পেডিকিউর মেনিকিউর করার বিশেষ কিছু উপায়:

  • পেডিকিউর কি?
  • পেডিকিউর করার নিয়মাবলী
  • পায়ের যত্নের জন্য ১০ টি উপোযগী টিপস
  • মেনিকিউর কি?
  • বাড়িতে বসে পার্লারের মতো মেনিকিউর করার পদ্ধতি

সময় অতিবাহিত না করে জেনে নেওয়া যাক পেডিকিউর মেনিকিউর করার খুটিনাটি বিষয়মূহ:

পেডিকিউর কি?

রাস্তার নোংরা, ধুলো, বালি, ধোঁয়া আমাদের পায়ের অনেক ক্ষতি করে। অফিস হোক কিংবা বাড়ি আমরা খালি পায়ে হাঁটি অনেকসময় যার ফলে কত ময়লা আমদের পায়ের তলায়, পায়ের নখে জমতে জমতে কালো আস্তরণ ফেলে দায়, পায়ের তলায় চামড়া রুক্ষ করে দেয়, করা পড়ে, অনেক সময় জলে জলে পায়ে নখকুনিও হয়। এই সকল বিষয় থেকে মুক্তির উপায় হল পেডিকিউর। পেডিকিউর হল পায়ের যত্ন নেওয়ার পদ্ধতি।

মেনিকিউর কি?

নিজের হাতকে কোমল, মোলায়েম, জৌলুসপূর্ণ রাখতে , রুক্ষতাকে দূর করে ত্বকে সতেজতা ফিরিয়ে আনার পদ্ধতি হল মেনিকিউর।

কেন করবেন মেনিকিউর?

যে কোন বয়সী মেয়েদের ক্ষেত্রেই মেনিকিউর অত্যন্ত জরুরি। অনেক সময় আপনার ব্যাক্তিত্ব, রুচিশীলতা ফুটে ওঠে আপনার হাতের নখের সৌন্দর্যের উপর। ধরুন আপনি কোন বড় কোম্পনিতে চাকুরিরত, কোন ওডিটরিয়ামে আপনি প্রেসেন্টেশন দিচ্ছেন তখন সর্বক্ষন আপনার হাতের মুভমেন্ট হচ্ছে বা বাড়িতে কোন অতিথি এল তাঁদের সাথে কথা বলার সময় যদি আপনার হাতের নখের উপর চোখ পড়ে সেক্ষেত্রে আপনার ব্যাক্তিতে বিপরীত প্রতিক্রিয়ার প্রতিফলন হতে পারে।

পেডিকিউর করার নিয়মাবলী

পেডিকিউর মেনিকিউর
পেডিকিউর করার নিয়মাবলী

প্রয়োজনীয় জিনিস:

  • একটি গামলা
  • উষ্ণ গরম জল
  • শ্যাম্পু
  • পাতিলেবু
  • ঝামাপাথর
  • বেকিং সোডা
  • অরেঞ্জ স্টিক
  • নেইল কাঁটার
  • নেল সার্প্নার
  • স্ক্রাবিং ক্রিম ( ঘরে তৈরি টক দই ,চালের গুড়ো, কর পাউডার)
  • ময়শ্চারাইজার
  • টোনার
  • রিমুভার

কিভাবে করবেন ?

পায়ের নখে নেইলপলিশ থাকলে রিমুভার দিয়ে সেটি উঠিয়ে নিন।

একটি গামলায় শ্যাম্পু, লবন ও জল নিয়ে ভালোভাবে মিশিয়ে ২০ মিনিট পা ডুবিয়ে রাখুন।

২০ মিনিট পর পায়ের নখ নরম হয়ে গেলে নেইল কাঁটার দিয়ে নখ কেটে সার্পনার দিয়ে সেট করে নিন।

এরপর আবারও সেই শ্যাম্পু মেশনো গামলায় পা ডুবিয়ে কিছুক্ষন রাখুন। তারপর একটি ব্রাশের মধ্যে শ্যম্পু নিয়ে একটি একটি করে পা উঠিয়ে ভালো ভাবে পায়ের তলা ও উপরের অংশ ঘষে নিন।

এরপর ঝামাপাথর নিয়ে পায়ের গোড়ালি, ও তালু ভালোভাবে ঘষুন যাতে মরা চামড়া উঠে যায়। ঘষা হয়ে গেলে সেই একই বালতিতে পা ঢুবিয়ে রাখুন।

এবার একটি তোয়ালে দিয়ে হালকা হাতে পা মুছে ফেলুন। তারপর পায়ের সকল নখে ময়শ্চারাইজার লাগিয়ে নিন। এখন একটি অরেঞ্জ স্টিক দিয়ে ভালোভাবে নখের ভেতরের যত ময়লা, তেলভাব সব পরিষ্কার করে নিন।

নখের চারিধারে কিউটিকলের আলাদা আস্তরণ থাকে সেটি ট্রো-নেইল ট্রিমার দিয়ে সাবধানে কেটে ফেলুন।

এখন একটি পাতিলেবু কেটে একটি টুকরোর মধ্যে বেকিং সোডা নিয়ে ভালো করে পায়ের নখ ও চামড়ার উপর ঘোষে ৫ মিনিট রেখে পরিষ্কার জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

এবার একটি স্ক্রাবিং ক্রিম তৈরি করুন ( টক দই, চালের গুঁড়ো , কোকো পাউডার একটি পাত্রে নিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিতে হবে) সেটি হাটুর আগে অবধি লাগিয়ে ১০ মিনিট যাবৎ ম্যাসাজ করুন। তারপর পা ধুয়ে নিন।

স্ক্রাবিং এর পর লোমকূপ আলগা হয়ে যায় তাই টোনার লাগিয়ে নিন। শুকিয়ে গেলে ময়শ্চরাইজার এপ্লাই করুন।

পায়ের নখে এবার নেইলপলিশের বেস লাগিয়ে আপনার পছন্দ মতো রং বেঁছে নিন।

পেডিকিউর করার উপকারিতা

১) নখের ময়লা দূর হয়।
২) মরা চামড়া সরিয়ে নতুন চামড়ার সৃষ্টি হয়।
৩) রক্ত সঞ্চালন সঠিক ভাবে হয়।
৪) পায়ের ত্বক কোমল ও নরম হয়।
৫) পায়ের কড়া দূর হয়।
৬) পায়ের জৌলুস বাড়াতে সাহায্য করে।
৭) রুক্ষতা দূর করে।
৮) গোড়ালি ফাটার হাত থেকে নিষ্পত্তি ঘটায়।
৯) পায়ের ত্বক টানটান হয়।
১০) ভঙ্গুর নখ ও নখকুনি থেকে মুক্তি ঘটে…

পায়ের যত্নের জন্য ১০ টি উপযোগী টিপস

নখ পরিষ্কার রাখুন:

ঘর-বাহির করতে করতে আমাদের নখের ভেতর অনেক ধুলো, ময়লা জমে। যা নখের জন্য খুব ক্ষতিকারক। তাই পারলে নিয়মিত নখ পরস্কার করুন।

সঠিক নেইলপলিশ রিমুভারের ব্যবহার:

অনেক সময় গাঁড়ো নেইলপলিশ পড়ার ফলে নখের মধ্যে হলদেভাব দেখা যায়। এবং সাধারণ রিমুভার ব্যবহার করার ফলে অনেকসময় নখ সাদা হয়ে যায় তাই এক্ষেত্রে অ্যাসিটোন নেইলপলিশ রিমুভার বা নন অ্যাসিটোন নেইলপলিশ রিমুভার ব্যবহার করা শ্রেয়।

পেডিকিউর করার আগে শেভ করা উচিৎ নয়:

পেডিকিউর করার আগে শেভ করা কোনোমতেই উচিৎ নয় কারন শেভ করার সময় কারনবশত পায়ের কোন অংশ কেটে গেলে পেডিকিউর করার সময় পায়ের ময়লা পরিস্কার করার জল সেখানে লাগলে খুব সহজেই ব্যক্টেরিয়া শরীরে প্রবেশ করতে পারে। যার ফলে ইনফেকশন হতে পারে। তাই পেডিকিউর ও মেনিকিউর উভয় ক্ষেত্রে এটি বিষয়টি মনে রাখা বাঞ্ছনীয় ।

সঠিকভাবে নখ কাটুন:

পেডিকিউর করার পূর্বে নখ কাঁটা জরুরি। যতবেশী বড় নখ রাখবেন আপনার শরীরের পক্ষে ক্ষতিকর।

ক্যালাস ও কর্ন নরম করুন:

ক্যালাস ও কর্ন হলো আমাদের পায়ের শক্ত মোটা পুরু ত্বক। পায়ের পাতা ও গোড়ালিতে বার বার ঘর্ষন , চাপ লাগার ফলে জায়গাটি কালো হয়ে যায়। যার ফলে সেটি পুরু হয়ে যায় ও ব্যাথার উৎপত্তি হয়। তাই পেডিকিউর করার সময় সেটি নরম করে নেওয়া খুব জরুরি।

কিউটিকলের যত্ন নিন:

আমদের নখ যেখান থেকে শুরু হয় সেই অংশকে কিউটিকল বলে। এটি নখকে জীবানুর হাত থেকে রক্ষা করে তাই এই অংশের যত্ন নেওয়া বাঞ্ছনীয়।

ঘন ঘন নেইলপলিশ পড়া থেকে বিরত থাকুন:

ঘন ঘন নেইলপলিশ পড়লে নখের মেলালিন নষ্ট হয়ে যায়। যার ফলে নখ ভঙ্গুর ও পাতলা হয়ে যায়। তাই ঘন ঘন নেইলপলিশ না পড়াই উচিৎ।

ফিশ পেডিকিউর থেকে বিরত থাকুন:

অনেকেই এই ধরনের পেডিকিউর করাতে ভালোবাসেন । কিন্তু এতে লাভের চাইতে ক্ষতি বেশী। যেই পাত্রে মাছ ও জল রাখা হয় সেটি বারবার পরিষ্কার করা সম্ভব নয় । এর ফলে একজনের জীবানু অন্যের শরীর যাওয়ার সম্ভবনা থেকে যায়।

শীতকালে পায়ের যত্ন:

শীতকালে আমাদের শরীর রুক্ষ হয়ে যায় ফলে সর্বদা মোজা পড়ে থাকুন, যে কোন ক্রিম, ময়শ্চারাইজার ব্যবহার করুন যাতে ত্বক নরম থাকে।

নিয়মিত ক্রিম ব্যবহার করুন:

ক্রিম যে কোন ত্বককে কোমল রাখে তেমনই পায়ের গোড়ালি, উপরের অংশে ক্রিম ব্যবহার করুন সেক্ষেত্রে ফাটল থেকে রক্ষা পাবেন। কারন একবার ফাটল ধরলে সেখান থেকে নিরাময় পাওয়া দুষ্কর।

বাড়িতে বসে পার্লারের মতো মেনিকিউর করার পদ্ধতি

মেনিকিউর করার নিয়মাবলী
মেনিকিউর করার নিয়মাবলী

প্রয়োজনীয় জিনিস:

  • একটি গামলা
  • উষ্ণ গরম জল
  • শ্যাম্পু
  • পাতিলেবু
  • নেইল কাঁটার
  • নেল সার্প্নার
  • ব্রাশ
  • লবন
  • টুথপেস্ট
  • স্ক্রাবিং ক্রিম ( ঘরে তৈরি টক দই ,চালের গুড়ো , গোলাপ জল, আলভেরা জেল )
  • ময়শ্চারাইজার
  • টোনার
  • রিমুভার

মেনিকিউর করার নিয়মাবলী

হাতের নখে নেলপলিশ থাকলে রিমুভার দিয়ে সেটি উঠিয়ে নিন।

নেল কাঁটার দিয়ে নিজের পছন্দের আকৃতিতে নখ কেটে ও সার্পনারর দিয়ে ঘষে নিন।

একটি পাত্রে শ্যাম্পু , নুন, বেকিং সোডা ও জল নিয়ে ভালোভাবে মিশিয়ে ২০ মিনিট হাত ডুবিয়ে রাখুন।

এরপর আবারও সেই শ্যাম্পু মেশনো গামলায় দু- হাত ডুবিয়ে কিছুক্ষন রাখুন। তারপর একটি ব্রাশের মধ্যে শ্যম্পু নিয়ে একটি একটি করে হাত ভালো ভাবে ঘষে নিন।

এবার তোয়ালে দিয়ে হালকা ভাবে মুছে ফেলুন। তারপর সকল নখে ময়শ্চারাইজার লাগিয়ে নিন। এখন একটি অরেঞ্জ স্টিক দিয়ে ভালোভাবে নখের ভেতরের যত ময়লা, তৈলাক্তভাব সব পরিষ্কার করে নিন। কারন হাতের নখ অনেক বড় হয় তাতে ধুলো ময়লা বেশী জন্মে।

নখের চারিধারে কিউটিকলের আলাদা আস্তরণ থাকে সেটি ট্রো-নেইল ট্রিমার দিয়ে সাবধানে কেটে ফেলুন।

এখন একটি পাতিলেবু কেটে একটি টুকরো নিয়ে নখের উপরে ও নিচে ভালো ভাবে ঘোষে ৫ মিনিট রেখে পরিষ্কার জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

এবার একটি ব্রাশের মধ্যে টুথপেস্ট নিয়ে ভালো ভাবে গোটা হাতে , নখের ভিতরের ও উপরের দিকে ঘষুন তারপর ধুয়ে ফেলুন।

এবার একটি স্কাবিং ক্রিম তৈরি করুন ( টক দই, চালের গুঁড়ো , গোলাপ জল, আলভেরা জেল একটি পাত্রে নিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিতে হবে) সেটি হাতের উভয় দিকে লাগিয়ে ১০ মিনিট ম্যাসাজ করুন। তারপর হাত ধুয়ে ফেলুন।

স্ক্রাবিং এর ফলে লোমকূপ আলগা হয়ে যায় তাই টোনার লাগিয়ে নিন লোমকূপের ছিদ্র ভরাট করতে। টোনার শুকিয়ে গেলে ময়শ্চরাজার লাগিয়ে নিন।

হয়ে গেল ঠিক পার্লারের মতো আপনার হাতের যত্ন নেওয়া।

সেরা পেডিকিউর ম্যানিকিউর কিট কিনুন

মেনিকিউর করার উপকারিতা:

১) নখের ময়লা দূর করে।
২) মরা কোষে দূর করে নতুন কোষের জন্ম দেয়
৩) রক্ত সঞ্চালন সঠিক ভাবে হয়
৪) হাতের ত্বক কোমল ও নরম হয়
৫) হাতের নখে জমে থাকা জীবাণুর নাশ করে
৬) হাতের জেল্লা বাড়াতে সাহায্য করে
৭) হাতের ত্বকের শুষ্কতা ও রুক্ষতা দূর করে।
৮) ভঙ্গুর নখ ও পাতলা নখ জনিত সমস্যার অবসান ঘটায়।

আরও পড়ুন – ফর্সা হওয়ার সহজ উপায়: ফল পাবেন মাত্র ৭ দিনে

তবে দেখলেন তো ঘরে বসে পেডিকিউর মেনিকিউর করার উপায়। এবার সময়ের অজুহাতে নিজের যত্ন না নেওয়ার দিন শেষ। পেডিকিউর মেনিকিউর করার যে পদ্ধতি তুলে ধরলাম আপনাদের কাছে সেই পদ্ধতি অবলম্বন করলে আপনিও পেতে পারেন একদম পার্লারের মতো জেল্লা । তাই দেরি না করে খুব চটজলদি বাড়িতে বসে পেডিকিউর মেনিকিউর করে নিজেকে আরও লাস্যময়ী করে তুলুন ।

Leave a Reply

Top