You are here
Home > Don't Miss > রান্নাবান্না ও রূপচর্চা > ঠোঁটের কালো দাগ দূর করার উপায়: ঠোঁট করে তুলুন গোলাপী ও মসৃণ

ঠোঁটের কালো দাগ দূর করার উপায়: ঠোঁট করে তুলুন গোলাপী ও মসৃণ

ঠোঁটের কালো দাগ দূর করার উপায়

সুন্দর মুখমন্ডলে একটু মিষ্টি স্মাইলই শোভা বাড়িয়ে দেয় ব্যক্তি সৌন্দর্য্যকে। আর যেহেতু ঠোঁটের মাধ্যমেই সেই হাঁসির প্রকাশ সেহেতু হাঁসির প্রাণকেন্দ্রই চমকপ্রদ গোলাপী ঠোঁট । বলাইবাহুল্য, একজোড়া গোলাপী ঠোঁটের মিষ্টি স্মাইলই আরো আকর্ষণীয় করে তোলে আমাদেরকে। তবে সুন্দর মুখমন্ডল কিন্তু ঠোঁটের কালো দাগ!! আমাদেরকে সমস্যায় ফেলে দেয় এবং সবার সামনে প্রাণোচ্ছ্বল হাঁসি নিয়ে ও দূর্বিধায় ফেলে দেয়। তাই, ঠোঁটের কালো দাগ দূর করার উপায় নিয়ে মানুষ চিন্তিত।

আজকাল নারী-পুরুষ উভয়ই বেশ ওরিড ঠোঁটের কালচে দাগ নিয়ে। কেনো এই ঠোঁটের কালচে দাগ? কালো দাগ দূর করার উপায় কি?? উদাসীন ও হতাশ অনেকেই ঠোঁটের কালচে দাগ নিয়ে!। তাই আজকের আলোচনায় আমরা ঠোঁটের কালো দাগ দূর করার উপায় নিয়েই বিশদে বলবো ও সেই সাথে কেন এই ঠোঁটের কালচে দাগ এবং ঠোঁটকে গোলাপী ও মসৃণ করে তোলার উপায় বলবো।

আসুন দেখে নেওয়া যাক :

  • ঠোঁট কালো হওয়ার কারণ
  • ঠোঁটের কালো দাগ দূর করার উপায়
  • সিগারেট খেয়ে ঠোঁট কালো হয়ে গেছে?- জেনে নিন প্রতিকার
  • গাঢ় শেড লিপস্টিক বা কম দামী কসমেটিক ব্যবহারে ঠোঁট কালো হয়ে গেছে? জেনে নিন প্রতিকার
  • ঠোঁটের কালচে দাগ দূর করতে ১৫ টি টিপস ও কিছু সতর্কতা
  • ঠোঁটকে গোলাপী ও মসৃণ করে তোলার উপায়

ঠোঁট কালো হওয়ার কারণ:

নারী পুরুষ উভয়েরই ক্ষেত্রে বেশ কিছু কারণে ঠোঁট কালো হতে পারে বা ঠোঁটের কালচে দাগ হতে পারে। বিশেষ করে কর্মব্যস্ত জীবন, মানসিক স্ট্রেস, ধূমপান করা, তামাক সেবন, কসমেটিক ইউজ, কেমোথেরাপি বা সূর্যের তাপ এসব কারণে আমাদের ঠোঁটে কালচে দাগ হয়ে থাকে ও ঠোঁট কালো হয়।

ঠোঁটের কালো দাগ দূর করার উপায়:

ঠোঁটের কালো দাগ দূর করার উপায় নিয়ে চিন্তিত নারী-পুরুষ উভয়ের জন্য রইলো ঠোঁট কালো হওয়ার সমস্যা সমাধানে, ঘরোয়া উপায়ে বেশ কিছু সহজ পদ্ধতি :

পাতিলেবু ও চিনি:

একটুকরো পাতিলেবু নিয়ে উপরে একটু চিনি দিয়ে ঠোঁটে আলতো করে ঘষুন এতে ঠোঁটের মরা কোষগুলো উঠে যাবে এবং ঠোঁটের কালো দাগ দূর হবে।

অ্যালভেরার রস:

একটুকরো অ্যালভেরা নিয়ে সবুজ অংশ বাদ দিয়ে ভিতরের জেলটা নিয়ে ঠোঁট ও ঠোঁটের চারপাশে লাগিয়ে রাখুন সারারাত তারপর সকালে উঠে ভালো করে ধুয়ে ফেলুন। বাজার চলতি অ্যালভেরার রস ও ব্যবহার করতে পারেন।

বেসন ও দুধ:

২/৩ চামচ বেসন নিয়ে অল্প একটু দুধ মিশিয়ে একটা পেস্ট তৈরী করে ঠোঁটে ১০ মিনিট লাগিয়ে ধুয়ে ফেলুন এতে ঠোঁটের কালো দাগ দূর হবে।

হলুদ প্যাক:

ত্বকের কালচে দাগ দূর করার জন্য হলুদের ব্যবহার আমরা অনেকেই জানি। এই হলুদের সাথে দুধ বা টকদই মিশিয়ে একটা পেস্ট তৈরী করে ঠোঁটে ১০ মিনিট লাগিয়ে রেখে তারপর ধুয়ে ফেলুন। ঠোঁটের কালো দাগ দূর হবে।

গ্লিসারিন:

একটি ছোট্ট কটন বল বা তুলো নিয়ে এতে অল্প গ্লিসারিন দিয়ে রাতে ঠোঁটের উপর লাগিয়ে রাখুন। সূর্য রশ্মি বা আর্দ্রতার কারণে শুষ্ক হয়ে যাওয়া ঠোঁটের মরা কোষগুলো তুলে দেয় এবং ঠোঁটের কালো দাগ দূর হবে।

চিনি স্ক্রাব:

অল্প একটু চিনির সাথে সামান্য একটু কোল্ড ক্রিম মিশিয়ে ঠোঁট স্ক্রাব করুন ঠোঁটের কালো দাগ দূর হবে।

বাদাম তেল মাসাজ:

প্রতিদিন রাতে অন্তত ৫ মিনিট অল্প পরিমাণ লেবুর রস ও বাদাম তেল একসাথে মিশিয়ে ঠোঁট মাসাজ করলে আর্দ্র ও শুষ্কতা দূর হবে এবং ঠোঁটের কালো দাগ ও দূর হবে।

ঘরোয়া পেস্ট:

২ টেবিল চামচ চিনি ও ৩ টেবিল চামচ মাখন দিয়ে একটা পেস্ট তৈরী করে ঠোঁট স্ক্রাব করুন ঠোঁটের কালো দাগ দূর হবে।

সিগারেট খেয়ে ঠোঁট কালো হয়ে গেছে? জেনে নিন প্রতিকার:

বেশিরভাগ পুরুষরা তো অধিক মাত্রায় ধূমপান করে শুধু তা না নারী ও সমানতালে ধূমপানের স্বীকার যা আমাদের স্বাস্থ্যের পক্ষে অত্যন্ত হানিকর। এছাড়া ও বিড়ি বা সিগারেট খেয়ে ঠোঁটের কালো দাগ বা কালচে দাগ পড়ে যায়। ধূমপানের কারণে এই ঠোঁটের কালো দাগ দূর করার উপায় বা প্রতিকার হলো –

মধুর ব্যবহার:

প্রতিদিন সামান্য পরিমাণ মধুর সাথে একটু চিনি ও অলিভ ওয়েল মিশিয়ে ঠোঁটে ১০ মিনিট রাখুন, কয়েকদিন টানা করে দেখুন সিগারেট খেয়ে ঠোঁটের কালো দাগ যে হয়েছিল তা নির্মূল হবে।

গাঢ় শেড লিপস্টিক বা কম দামী কসমেটিক ব্যবহারে ঠোঁট কালো হয়ে গেছে? জেনে নিন প্রতিকার:

গাঢ় শেড লিপস্টিকে ঠোঁট রাঙিয়ে নেওয়া বা ড্রেসের সাথে মানানসই লিপস্টিকে ঠোঁটকে আরো সুন্দর আকর্ষণীয় করে তোলার অভিপ্রায় সব মেয়েদেরই।
তবে এই গাঢ় শেড লিপস্টিকে বা কম দামী কসমেটিক ব্যবহারে কিংবা দামী ব্রান্ডের লিপস্টিক ব্যবহারে ও ঠোঁট কালো হয়ে যায়। গাঢ় শেড লিপস্টিক ব্যবহারে ঠোঁটের কালো দাগ দূর করার উপায় বা প্রতিকার হলো:

টকদই ব্যবহার:

টকদইয়ে থাকা ল্যাক্টিক অ্যাসিড ঠোঁটের রঙ উজ্জ্বল করতে দারুণ কার্যকরী। তাই প্রতিদিন একটা কটন বল বা একটু তুলাতে টকদই নিয়ে ঠোঁটে লাগালে গাঢ় শেড লিপস্টিক বা কম দামী কসমেটিক ব্যবহারে কালো হয়ে যাওয়া ঠোঁট
উজ্জ্বল হবে।

ঠোঁটের কালচে দাগ দূর করতে ১০টি টিপস ও কিছু সতর্কতা:

ঠোঁটের কালচে দাগ দূর করতে বেশ কিছু ঘরোয়া টিপস প্রয়োগ করা যায় তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য ১০টি টিপস-

১. রাতে খাওয়ার পর প্রতিদিন যে টুথপেস্ট ব্যবহার করেন তা ঠোঁটের উপর সামান্য পরিমাণে লাগিয়ে নরম ব্রাশ দিয়ে দাঁতের মতো ঠোঁট ও আলতোভাবে ব্রাশ করুন।

২. পুদিনার রস প্রতিদিন ঠোঁটে অন্তত ১০ মিনিট লাগান।

৩. পাতিলেবু ব্লিচিং এর কাজ করে তাই নিয়মিত পাতিলেবুর রস লাগান চটজলদি ঠোঁটের কালচে দাগ দূর হবে।

৪. মধু ত্বকের ঔজ্জ্বল্যতা ফিরিয়ে আনতে কার্যকরী
উপাদান। তাই রাতে ঘুমানোর আগে ঠোঁটে মধু লাগিয়ে শুয়ে পড়ুন। নিয়মিত মধু ব্যবহারে ঠোঁটের কালচে দাগ দূর হবে।

৫. একটুকরো বরফের সাথে আমন্ড তেল মিশিয়ে ঠোঁটে ঘষুন ঠোঁটের কালচে দাগ দূর হয়ে ঠোঁট
উজ্জ্বল হবে।

৬.ঠোঁটের শুষ্কভাব দূর করতে এবং ঠোঁটের কালচে দাগ দূর করতে রোজ রাতে নারকেল তেল লাগিয়ে রাখুন ঠোঁটে।

৭. যে কোনো দাগ হাল্কা করতে বরফ ব্যবহার হয়ে থাকে। ঠোঁটের কালচে দাগ দূর করতে একটুকরো বরফ নিয়ে ঠোঁটে ঘষুন।

৮. প্রত্যেক গৃহস্থেই রান্নাঘরে আলু থাকেই এই আলুর রস ও ঠোঁটে লাগাতে পারেন।

৯. খুব সহজেই ঠোঁটের কালচে দাগ দূর করতে একটি নরম ব্রিসেলস যুক্ত ব্রাশ ভিজিয়ে ঠোঁটে ঘষুন।

১০. ১ টেবিল চামচ বেকিং সোডা অল্প একটু জলে গুলে নিয়ে তার সাথে টুথপেস্ট মিশিয়ে একটা পেস্ট বানিয়ে ঠোঁট ব্রাশ করুন একদিন অন্তর একদিন। আর দেখুন ঠোঁটের মরা কোষ উঠে গিয়ে ঠোঁটের কালচে দাগ দূর হবে।

ঠোঁটের কালো দাগ দূর করার উপায় হিসাবে অতি সহজেই ঘরোয়া উপায়গুলি প্রয়োগ করলে ঠোঁটের কালচে দাগ দূর হবে এবং ঠোঁটের ন্যাচারাল কালার বজায় থাকবে তবে এরই সাথে কিছু সতর্কতা অবলম্বন করলে ঠোঁটের কালচে দাগ বা কালো দাগ থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে –

  • ধূমপান ত্যাগ করুন।
  • রোদে বার হওয়ার আগে ত্বকে ব্যবহার করা সানস্ক্রিমের মতো ঠোঁটে SPF যুক্ত লিপবাম লাগান।
  • অনেকেই বদাভ্যাসে বারবার জিহ্বা দিয়ে ঠোঁট ভেজাতে থাকে এটা ত্যাগ করুন লিপজেল ব্যবহার করুন।
  • বাইরে থেকে ফিরে প্রতিদিন লিপস্টিক তুলে ফেলুন। এবং ঘুমাতে যাওয়ার আগে লিপবাম ব্যবহার করুন।
  • চা, কফির অভ্যাস ত্যাগ করুন বেশি পরিমাণে জল খান।

ঠোঁটকে গোলাপী ও মসৃণ করে তোলার উপায়:

ঠোঁটের কালো দাগ দূর করে বা কালচে দাগ দূর করে উজ্জ্বল গোলাপী ও মসৃণ ঠোঁট পেতে সবাই চায়। অনেকেরই স্বপ্ন একজোড়া গোলাপী ঠোঁটের।
বিশেষত ইয়ং জেনারেশনের পাউট করে সেলফি তোলার জন্য গোলাপী ঠোঁট তো অপরিহার্য যা
মুখমন্ডলের সৌন্দর্য্যকে বিশেষ মাত্রা দান করে।
আসুন দেখে নিন ঠোঁটকে গোলাপী ও মসৃণ করে তোলার উপায় :

দুধের সর ঠোঁটকে গোলাপী ও মসৃণ করে:

দুধের সরের মাধ্যমে ঠোঁটকে গোলাপী ও উজ্জ্বল করে তোলার পদ্ধতি সেই প্রাচীন কাল থেকেই চলে আসছে। দুধের সরে মধু মিশিয়ে ঠোঁটে লাগান নিয়মিত কয়েকদিন আর দেখুন ঠোঁট কেমন গোলাপী ও মসৃণ হয়ে ওঠে।

ঠোঁটকে গোলাপী ও মসৃণ করতে গোলাপ অপরিহার্য:

গোলাপের পাপড়ি দুধে ভিজিয়ে তারপর তা দিয়ে পেস্ট বানিয়ে এর সাথে মধু ও গ্লিসারিন মিশিয়ে ঠোঁটে লাগান। ১৫ মিনিট রেখে তারপর একটুকরো তুলা দুধে ভিজিয়ে ঠোঁট ক্লিন করুন। দেখুন ঠোঁট কেমন গোলাপী,মসৃণ ও উজ্জ্বল হয়ে ওঠে।

গোলাপী ও মসৃণ ঠোঁট পেতে গাজরের রস:

গাজরের রসের সাথে জাফরান মিশিয়ে ঠোঁটে লাগান, এটি ঠোঁটের রঙ গোলাপী হতে সাহায্য করে।

গোলাপী ও মসৃণ ঠোঁট পেতে কমলার খোসা:

কমলালেবুর খোসা শুকিয়ে গুঁড়া করে গোলাপজলের সাথে মিশিয়ে একটা পেস্ট বানিয়ে ঠোঁটে লাগান।

গোলাপী ও মসৃণ ঠোঁট পেতে টমেটোর রস ব্যবহার:

টমেটো পেস্ট করে সাথে নারকেল তেল মিশিয়ে অথবা টমেটোর রসের সাথে ক্রিম মিশিয়ে ঠোঁটে লাগান। ঠোঁট হয়ে উঠবে গোলাপী ও মসৃণ।

ঠোঁটকে গোলাপী ও মসৃণ করতে শসার রস:

ঠোঁটকে গোলাপী ও মসৃণ করতে শসার রস খুবই গুরুত্বপূর্ণ উপকরণ। রোজ ৫ মিনিট নিয়মিত শসার রস ঠোঁটে লাগান। ঠোঁট হয়ে উঠবে গোলাপী ও মসৃণ ও চকচকে।

আরও পড়ুন – ঘরোয়া উপায়ে চুলের যত্ন নিন | Best Hair Care Tips

সুতরাং বন্ধুরা আপনারা খুব সহজেই ঘরোয়া উপায়ে ঠোঁটের কালো দাগ দূর করার উপায় প্রয়োগ করে, ঠোঁটের কালচে দাগ দূর করে ঠোঁটকে গোলাপী ও মসৃণ করে তুলুন। কেমন রেজাল্ট পেলেন জানাতে ভুলবেন না।

Leave a Reply

Top