You are here
Home > Don't Miss > শরীর ও স্বাস্থ্য > নয়নতারা ফুলের উপকারিতা: জেনে নিন নয়নতারা ফুলের নানান গুণাগুণ

নয়নতারা ফুলের উপকারিতা: জেনে নিন নয়নতারা ফুলের নানান গুণাগুণ

নয়নতারা ফুলের উপকারিতা

আমাদের প্রায় সকলের বাড়ির আশেপাশে বা কখনও বাড়ির ছাদের এক কোনে, বারান্দায় ফাটলে একটি গুল্ম জাতীয় উদ্ভিদ আমাদের কোনো রকম পরিচর্যা ছাড়াই হতে দেখা যায়, যাকে আমরা নয়নতারা ফুলের গাছ বলে থাকি। এই নয়নতারা ফুলের উপকারিতা সম্পর্কে আমরা অনেকেই অবগত নই।হয়তো কোনো অসুখের জন্য আমরা ভুগছি, কষ্ট পাচ্ছি সঠিক চিকিৎসা করিয়ে উঠা যাচ্ছে না। কে বা বলতে পারে, এই নয়নতারা ফুল তার এক মক্ষম ওষুধ— কারণ, নয়নতারা ফুলের গুণাবলী এবং চিকিৎসাশাস্ত্রে এটির ব্যবহার অনেক বিস্তার, অনেক কঠিন ব্যধি, মারণ রোগের বিনাশ ঘটায় এই নয়নতারা ফুল।

শুধু রোগ নয় বর্তমান যুগের ব্যস্ত জীবনে প্রতি নিয়ত চিন্তার যে ছাপ তারও নিষ্পত্তি ঘটাতে সক্ষম এই নয়নতারা ফুল। তাহলে চলুন আর বিলম্ব না করে এবার জেনে নেওয়া যাক কতটা উপকারী এই ফুল এবং কী কী রোগ নিরাময়ে বিশেষ ভূমিকা পালন করে এটি।

নিম্নে এই সকল উপকারিতা বিশ্লেষণ করে আলোচনা করে দেখে নেওয়া যাক:

স্ট্রেস এবং অ্যাংজাইটি থেকে দূরে রাখতে সক্ষম নয়নতারা:

আগেই বললাম বর্তমান যুগে মানুষের এই প্রতিযোগিতার জীবনে কাজের চাপ, মানসিকচিন্তা যেন নিত্য দিনের সঙ্গী। মানুষের এগুলোর সাথে পাল্লা দিয়ে বৃদ্ধি পাচ্ছে স্ট্রেস ও মানসিক অবসাদ যা মানুষের জীবনকে নরক করে তুলেছে তাই এটিকে অবহেলা করা মোটেই কাম্য নয়। নয়নতারা ফুলের মধ্যে থাকা বিশেষ উপাদান যা শরীরে গেলে রক্তের সাথে মিশে যায় এবং স্ট্রেস নামক শব্দটি মুছে দিতে থাকে ধীরে ধীরে। এবং অ্যাংজাইটি কমাতেও এটি সমান কার্যকরী।

ডায়বেটিস রোগে মোক্ষম দাওয়াই হিসাবে নয়নতারা ফুলের উপকারিতা:

ডায়বেটিসের মতো রোগ নয়নতারা ফুলের উপকারিতা দ্বারা সেরে উঠতে পারে। যেভাবে এই ডায়বেটিসের প্রকপের পরিমাণ আকাশ ছোঁয়া হয়েছে তাতে এর রাশ টানতে নয়নতারা ফুলের বিকল্প নেই। এটি রক্তে শর্করার মাত্রা বাড়তে দেয়না যার ফলে এটি ডায়বেটিসকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারে অতি সহজেই। বর্তমান অবস্থার ওপর ভিত্তি করে বলা যায় এখন থেকে সচেতন না হলে আগামী দিনগুলিতে ডায়বেটিসের হাত থেকে রক্ষা পাওয়া দুষ্কর হয়ে দাঁড়াবে।

মস্তিষ্কের কার্যকারিতা অনেকাংশে বৃদ্ধি ঘটায়:

বলাবাহুল্য যে মস্তিকের কার্যক্ষমতা উন্নতির কারণও এই নয়নতারা ফুলের উপকারিতা।
ফুলের মধ্যে থাকা গুনাবলীতে দেহে ভিনকামাইনের পরিমাণ বাড়ায় মস্তিষ্কে দ্রুত রক্ত চলাচল ঘটে যা মস্তিষ্কের কার্যকারিতা বৃদ্ধি ঘটায় এবং স্মৃতি শক্তি বা স্মরণশক্তি তীক্ষ্ম করে তুলতে সাহায্য করে। দেহে ভিনকামাইনের পরিমাণ বাড়ায় তা কগনিটিভ পদ্ধতির দ্রুত উন্নতি ঘটায় যা মস্তিকের বিকাশ ঘটায়।
নয়নতারা ফুলের রস রোজ চায়ের সাথে পান করা বা শুধু খাওয়া আবশ্যক।

রক্তক্ষরণ হ্রাসের উপশম নয়নতারা ফুল:

নয়নতারা ফুল রক্তক্ষরণ হ্রাসের এক অতুলনীয় ওষুধ। শরীরের বিভিন্ন স্থানে রক্তক্ষরণ কমাতে এটি ব্যবহার করা হয়। কোনো কাটা জায়গায় নয়নতারা ফুলের রস বা থেঁতো করে লাগলে সহজে উপকার পাওয়া যায়। শুধু তাই নয়, নয়নতারা ফুলের উপকারিতা পাইলসের রোগীদেরও খুব উপকার করে। এই ফুলের বাটা মলদ্বারে লাগলে রোগ থেকে মুক্তি মিলবে সহজেই। এছাড়াও নয়নতারা ফুল যে কোন ক্ষততে লাগানোর পর খুব তাড়াতাড়ি ফল পাওয়া যায়।

ক‍্যান্সারের নিরামক হিসেবে নয়নতারা ফুল:

ক্যান্সারকে মারণ রোগ হিসাবে চিহ্নিত করা হয়। এই রোগ হলে মৃত্যুই একমাত্র ভবিতব্য বলে ধরে নেওয়া হয়। বর্তমান পৃথিবীতে ক্যান্সার আক্রান্তের সংখ্যা দ্রুত গতিতে বাড়ছে কিন্তু এই ক্যান্সারের মতো মারণ রোগের চিকিৎসা এই নয়নতারা ফুলের মাধ্যমে সম্ভব। নয়নতারা ফুলে প্রচুর ক্যান্সার রোগ নিরাময়ের জন্য উপাদান থাকে যা প্রতিদিন খেলে এই রোগ ছুঁতেও পারবে না। সময় থাকতে থাকতে সাবধান হলে বড়ো বিপদ আমাদের ছুঁতেও পারবে না।

হার্টের ক্ষমতা বৃদ্ধিতে নয়নতারা ফুলের ভূমিকা:

নয়নতারা ফুলের উপকারিতা হার্টের ক্ষমতা বৃদ্ধি ঘটাতে অপরিহার্য ভূমিকা পালন করে। হার্ট অ্যাটাক বা স্ট্রোক থেকে বাঁচাতে পারে যদি আমরা রোজ নয়নতারা ফুলের রস পান করি। এটি দিনের পর দিন খাওয়ার ফলে ধীরে ধীরে হার্টের ক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে এবং মানুষের দীর্ঘ আয়ু হবে। এটি হার্টের বিভিন্ন রকম অসুখ সারাতে সক্ষম কিন্তু মাঝে মধ্যে খেলে হবে না তার জন্য নিয়মানুযায়ী প্রত্যহ খাবার অভ্যাস করতে হবে।

ব্লাডপ্রেসার অধীক মাত্রায় নিয়ন্ত্রণে নয়নতারার দাওয়াই:

নয়নতারা ফুলের উপকারিতা যেমন অতুলনীয় তেমনি অপরিহার্য। ব্লাড প্রেসারের মতো অসুখ রোজ সকালে ৪-৫টি ফুলের বাটা খাওয়া দ্বারা উপশম সম্ভব। মানুষ অনেক ডাক্তার বদ্যি করে কিন্তু বেসিক এই টিপ গুলি মানুষের জীবনকে অনেক সুন্দর করে তুলতে পারে। তাই ব্লাড প্রেসার অধিক মাত্রায় নিয়ন্ত্রণে নয়নতারা ফুলের রস খাওয়া আবশ্যক।

অনিদ্রা দূরীকরণে নয়নতারা ফুল:

অনিদ্রা দূর করতে নয়নতারা ফুলের রস দিয়ে তৈরি চা হল এই রোগের অনত্যম সহজলভ্য ওষুধ। অনিদ্রা থেকে চোখের কোনে কালি এবং আরও নানা রোগের উৎপত্তি ঘটে তাই হালকা ভাবে নেওয়া কখনোই কাম্য নয়।

ব্যস্ততর জীবন ব্যস্ততম হয়ে উঠেছে তাই কাজের তালিকা পুরনে মানুষ বিদায় জানিয়েছে ঘুমকে। দিনের ৭ঘন্টা ঘুম আজ স্বপ্ন হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাই মানুষের জীবনে স্বস্তির নিশ্বাস আনতে জীবনধারণের ধরন পরিবর্তন জরুরী হলেও তা অসম্ভব হওয়ায় ভেষজের সাহায্য নিয়ে যতটা হয় ততটাই লাভ। আমাদের সবার সুস্থ জীবন হল আমাদের প্রধান উদ্দেশ্য কারণ, স্বাস্থ্যই হল সম্পদ।

আরও পড়ুন – লবঙ্গের উপকারিতা

আশা করি উপরের আলোচনাটি সবার অনেক উপকারে আসবে। কেমন হল অবশ্যই জানাবেন। পরবর্তী আরও ভেষজ সম্পর্কিত তথ্য পেতে আমাদের সঙ্গে থাকুন।
ধন্যবাদ।

Leave a Reply

Top