You are here
Home > Don't Miss > শরীর ও স্বাস্থ্য > লেবুর উপকারিতা এবং গুণাগুণ সংক্রান্ত সকল কিছু জানুন এক নিমেষে

লেবুর উপকারিতা এবং গুণাগুণ সংক্রান্ত সকল কিছু জানুন এক নিমেষে

লেবুর উপকারিতা

লেবু হল রিফ্রেশ করা একটি ফল। ঠান্ডা জলে এটির একটুকরো দেখলেই চোখে মুখে তৃপ্তির ছাপ ফুটে ওঠে। চট করে গরম থেকে ফিরেই বলুন বা রাস্তায় চলাচলের মধ্যে, আবার কখন গরম ভাতের সাথে নিরামিষ ও আমিষের দিনে কখনো বা শুধুই, আমরা এই লেবুকে অতপ্রত ভাবে আমাদের জীবনের সাথে জড়িয়ে ফেলেছি। লেবুর উপকারিতা আমাদের অনেকাংশে সুস্থ জীবনধারণের অধীকারী করে তোলে। এই গুল্ম জাতীয় গাছের ফল লেবুর খোসাটিরও উপকারিতা নজিরযোগ্য অর্থাৎ লেবুর সম্পূর্ণটাই সম্পূর্ণভাবে উপকারী এবং প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সক্ষম।

তাহলে আর দেরি কিসের লেবু থেকে কী কী উপকারিতা আমরা পাই তার আলোচনা শুরু করা যাক।

  • পাতিলেবুর উপকারিতা
  • মুসম্বি লেবুর উপকারিতা
  • লেবুর শরবত খাওয়ার উপকারিতা
  • চুলের ক্ষেত্রে লেবুর উল্লেখযোগ্য ব‍্যবহার
  • ত্বকের যত্নে লেবুর গুণাবলী
  • গরমজলে লেবুর গুণাগুণ
  • লেবুর খোসার উপকারিতা
  • জ্বরে লেবুর উপকারিতা

আসুন দেখেনি লেবুর উপকারিতাগুলি বিস্তারিত ভাবে আলোচনার মাধ্যমে:

১)পাতি লেবুর উপকারিতা:

পাতিলেবু বা কাগজি লেবুর গাছ প্রায় আমাদের সবার বাড়িতে দেখা যায়। এটি একটি গুল্ম জাতীয় উদ্ভিদ। আয়ুর্বেদিক মতে, এটি অনেক রোগ নিরাময়ে সক্ষম। কানের রোগ সারাতে পাতিলেবুর রস খুব উপকারী।রুচিহীন ব্যক্তি রুচি ফেরাতে এবং গলা ব্যথা সারাতে এই লেবুর রস গরম জলে দিয়ে গারগেল করলে খুব তাড়াতাড়ি ফল মেলে। সকালবেলা এই লেবুর রস জলে গুলে খেলে লিভার ভালো থাকে। এছাড়া মাথার যন্ত্রণা ও বাতের ব্যথা সারাবার ক্ষেত্রে এটি খুবই কার্যকরী। মজার বিষয় চোখের জ্যোতি বাড়াতে এই পাতিলেবুর রসের ফোটা অমূল্য। উপরন্ত বহুমূত্র ব্যধি এবং প্রসাবের সমস্যা নির্মূল ক‍রতে এটি এক কথায় অনবদ্য।

২)মুসম্বি লেবুর উপকারিতা:

লেবুর নানা ধরনের মধ্যে মুসম্বি হল একটি ধরন। মুসম্বি লেবুতে থাকা ভাইটামিন বা ভিটামিন সি শরীরের রক্ত বিশুদ্ধ ক‍রনে এবং রক্ত চলাচল সচল রাখতে কার্যকর। মুসম্বি লেবু শরীরের মিনারেলসের ঘাটতি পূরণে অদ্বিতীয়। এটি শরীরকে জলশূন্যতা অর্থাৎ ডিহাইড্রেশন থেকে রক্ষা করে। জন্ডিস সারাতে মুসম্বি লেবু অনেক ডাক্তার প্রেসক্রাইব ক‍রনে। শারীরিক এনার্জি বাড়াতে রোজ মুসম্বি খাওয়া বাধ্যতা মূলক। শিশু কালে মস্তিষ্কের বিকাশ ঘটাতে এই ফল খুব কার্যকরী এবং মুসম্বি লেবু শরীরকে ঠান্ডা রাখতে সাহায্য করে।

৩)লেবুর শরবত খাওয়ার উপকারিতা:

শরীরকে সতেজ রাখতে ক্লান্তি দূর করতে লেবুর জল বা শরবত এক কথায় অতুলনীয়। এটিতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে সাইট্রিক অ্যসিড, ক্যালশিয়াম, ভিটামিন সি ও মিনারেলস যা সর্দি কাশি থেকে দ্রুত আরাম প্রদান করে। লেবুর শরবত শরীরের এনার্জি বাড়ানোর সাথে সাথে মুডকেও তরতাজা করে তোলে। লেবুর উপকারিতা।পসিটিভ এনার্জি বারায় ও শরীরকে প্রাণচ্ছল করে তোলে। এছাড়াও পিএইচ ভারসাম্য বজায় রাখতে, ওজন কমাতে ও খাবার হজম করতে সাহায্য করে। যদিও লেবুর অ্যসিড দাঁতের সামান্য ক্ষতি করে তাই এটি খেয়ে অবশ্যই কুলকুচি করে নিতে হবে ভালো করে।

৪) চুলের ক্ষেত্রে লেবুর উল্লেখযোগ্য ব‍্যবহার:

লেবুর উপকারিতা আলোচনা করতে গিয়ে লেবুর রূপচর্চায় সাহায্যের কথা ভুলে গেলে কিন্তু চলবে না। চুলের অনেক সমস্যার সমাধান করতে লেবু অনস্বীকার্য। লেবু খুসকি দূর করতে, চুল বাড়াতে সাহায্য করে ও চুলকে অনেক সাইন দেয়। চুল পড়া কমাতে ও চুল পরিস্কার রাখতে লেবুর ব্যবহার উল্লেখযোগ্য। তবে মাথার স্কাল্পে লেবু ব্যবহারের সময় অবশ্যই তা সাবধানতার সাথে করতে হবে প্রতিক্রিয়া দেখা দিলে তা বন্ধ করে দেওয়া বাঞ্চনীয়।

৫) ত্বকের যত্নে লেবুর গুণাবলী:

চুলের পাশাপাশি ত্বকের যত্নে লেবুর উপকারিতা জুড়ি মেলা ভার। ত্বককে ঝকঝকে তকতকে করতে লেবুর গুনাবলী একশ শতাংশ কার্যকরী। ব্রণ কমাতে ও ব্রণের দাগ নির্মূল করতে, কনুই ও হাঁটুর কালো দাগ দূর করতে লেবু সাহায্য করে। প্রাকৃতিক টোনার হল এই লেবু যা মুখ পরিষ্কার করতে ব্যবহৃত হয়। পায়ের পাতার ফাটা সারাতে লেবুর রস আমরা ব্যবহার করতে পারি। তবে লেবুর রস অনেকের অ্যালার্জির কারণ হয় তাই আপনার অ্যালার্জি হয় কিনা তা নিশ্চিত করে তারপর ত্বকের ওপর লাগান। সূর্যের আলোতে লেবু ত্বকের ক্ষতি করে তাই রাতে এটি ব্যবহার করুন ভালো ফলের জন্য।

৬)গরম জলে লেবুর গুণাগুণ:

গরম জলে লেবু দিয়ে খালি পেটে খেলে তা মেদ ঝড়াতে সক্ষম। সকালে খালি পেটে খেলে এটি পান করলে এটি শরীরে অ্যন্টি অক্সিডেন্ট তৈরি করে , শরীরের ক্ষমতা বাড়ায় , ত্বক ভালো রাখে। সবথেকে উল্লেখযোগ্য এটি কডনিতে পাথর জমতে দেয়না। শরীরে ভিটামিন সি, পটাশিয়াম, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম প্রভৃতি পূরন করে। লিভারের টক্সিক বের করে দেয় ফলে লিভার ক্ষতির হাত থেকে বেঁচে যায়। তবে অধীক লেবুর রস পান করলে শরীর দূর্বল করে দেয় তাই পরিমাণ মতো খাওয়ার কথা মাথায় রাখতে হবে।

৭) লেবুর খোসার উপকারিতা:

কথায় আছে খোসাতে ভিটামিন বেশি থাকে লেবুর ক্ষেত্রে তার অন্যথা হয়নি। লেবুর খোসাতে রয়েছে লেবুর মতোই উপকারী অনেক উপাদান যেমন বিটা ক্যারোটিন, ম্যাগনেসিয়াম, ফাইবার, এসব উপাদান ব্যাকটেরিয়া ও ছত্রাক প্রতিরোধে সক্ষম। লেবুর খোসা জীবানু নাশক হিসাবে কাজ করে তাই ঘরের আয়না ,।পিতলের জিনিস পরিস্কার করতে লেবুর খোসা ব্যবহার করা হয়। এছাড়া, মাইক্রোওয়েভ পোড়া দাগ ও ফ্রিজ থেকে দূর্গন্ধ দূর করতে লেবুর খোসার ব্যবহার অনস্বীকার্য।

৮) জ্বরে লেবুর উপকারিতা:

জ্বর হলে আমরা সবাই জানি তা রুচি একেবারে কমিয়ে দেয়। খাবার ইচ্ছা থাকে না। খাবার না খাওয়ার ফলে আমরা আস্তে আস্তে দূর্বল হয়ে পড়ি । এই অবস্থায় লেবুর উপকারিতা আমাদেরকে রুচি বাড়িয়ে তুলতে সাহায্য ক‍রে, খাবারের স্বাদ ফিরে পেতেও কার্যকরী ভূমিকা নেয়। তাই জ্বর জ্বালা থেকে মুক্তি পেতে এবং দৈনন্দিন জীবনের খাদ্যতালিকায় তাড়াতাড়ি ফিরতে লেবু খুবই দরকারি।

আরও পড়ুন – করোনাভাইরাস প্রতিরোধে উপযোগী খাবার, বাড়ান শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা

বর্তমান পরিস্থিতি যত ভয়াবহ হচ্ছে ততই মানুষের শরীরের নানা রোগ ব্যধি বাসা করছে। এই কম্পিটিশনের যুগে ফিট থাকা তাই খুব জরুরি নাহলে পিছিয়ে পড়তে হবে। তাই শরীর ও মনের যত্ন নিতে এবং তাকে তরতাজা রাখতে লেবুর সঙ্গ ছাড়লে আমাদের চলবে না।লেবুর উপকারিতা আমাদের এসব কিছু থেকে বাঁচতে সাহায্য করবে।

আমাদের এই ছোট প্রয়াস কেমন লাগল জানান কিন্তু অবশ্যই আর হ্যাঁ এভাবেই সাথে থাকুন আরও নানান বিষয়ে বিস্তারিত ভাবে জানতে। চাইলে বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন।
ধন্যবাদ।।

Leave a Reply

Top