You are here
Home > Don't Miss > শরীর ও স্বাস্থ্য > গর্ভবতী হওয়ার লক্ষণ কি? সহবাসের কতদিন পর গর্ভবতী হয়

গর্ভবতী হওয়ার লক্ষণ কি? সহবাসের কতদিন পর গর্ভবতী হয়

গর্ভবতী হওয়ার লক্ষণ

মাতৃত্ব প্রতিটি মেয়ের জীবনে আনন্দময়, স্মৃতিমধুর মুহুর্ত। সকলেই স্মরনীয় করে রাখতে চায় তাঁদের প্রথম মাতৃত্বের স্বাদ। মেয়েদের জীবনের পরিপূর্ণতা লাভের অনুভূতি হয় গর্ভধারনের মাধ্যমে। কিন্ত অনেক সময় মহিলারা প্রথমাবস্থায় বুঝতে পারেন না যে সে সন্তানসম্ভবা। বিশেষভাবে যারা প্রথমবার গর্ভবতী হন তারা গর্ভবতী হওয়ার লক্ষণগুলি সচারচর অনুভব করতে পারেন না। ফলস্বরূপ অনেক সময় আপনার অজান্তেই কোন বড় অঘটন ঘটে যেতে পারে। এছাড়া আপনি যে মা হতে চলেছেন এই সম্বন্ধে জ্ঞাত হওয়া এক আলাদাই অনুভূতি। তাই গর্ভবতী হওয়ার লক্ষণ নির্ধারন করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু কিভাবে বুঝবেন আপনি সন্তানসম্ভবা তার লক্ষণ নিয়েই আজ আমাদের আলোচনার বিয়য়বস্তু।

  • ‌গর্ভবতী হওয়ার ৮ টি লক্ষণ
  • ‌গর্ভবতী হওয়ার প্রথম সপ্তাহের লক্ষণ
  • ‌সহবাসের কতদিন পর গর্ভবতী হয় একটি মহিলা

চলুন তাহলে সময় অতিবাহিত না করে মূল বিষয়ে প্রবেশ করা যাক।

গর্ভবতী হওয়ার ৮ টি লক্ষণ:

গর্ভবতী হওয়ার প্রথমিক ধাপে মহিলারা অনেকেই লক্ষনগুলি বুঝতে পারেন না। আর নিরাপত্তার স্বার্থে গর্ভধারনের সঠিক সময়কাল জানা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ যা মা ও শিশু উভয়ের জন্যই নিরাপদ। তাই কিভাবে বুঝবেন আপনি গর্ভবতী তার জন্য দেখে নিন গর্ভবতী হওয়ার ৮ টি লক্ষন।

১) বমি বমি ভাব:

আমরা বরাবর মা ঠাকুমার থেকে শুনে এসেছি গর্ভবতী হলে কোন কারন ছাড়াই মাথা ঘোরায়, দুর্বল লাগে, সর্বক্ষন গা গোলায়। যদি এই লক্ষনগুলি আপনি প্রতিনিয়ত অনুভব করেন তাহলে আপনি নিশ্চিত গর্ভবতী।

২) মাসিক না হওয়া:

ঋতুস্রাবের ক্ষেত্রে অনিয়ম বা হঠাৎ করে বন্ধ হয়ে যাওয়া গর্ভবতী হওয়ার অন্যতম লক্ষণ। সচারচর ২৮ দিন অন্তর অন্তর মাসিক হয়ে থাকে কিন্তু গর্ভবস্থার ক্ষেত্রে নিয়মটা আলাদা এই অবস্থায় সম্পুর্ণভাবে মাসিক বন্ধ হয়ে যায়।

৩) স্তনের পরিবর্তন:

গর্ভবতী হওয়ার লক্ষণ বোঝার অপর একটি বিশেষ উপায় হল স্তনের পরিবর্তন। যদি আপনি গর্ভবতী হন তাহলে স্তনের আকৃতি কিছুটা বৃদ্ধি পাবে, অনেক সময় ব্যাথা অনুভব করবেন, বৃন্ত গাঢ় রঙ ধারন করবে।

৪) খাবারের স্বাদে অরুচি:

হঠাৎ করে কোন খাবারে স্বাদ না পাওয়া, খাবারের গন্ধ না পাওয়া, যে খাবার আপনার সথেকে প্রিয় সেই পছন্দের খাবর সবথেকে অপছন্দের হয়ে উঠেছে, খাবারে অরুচি, খাবর খেতে ইচ্ছে না করা, এই সকল বিষয় কিন্তু গর্ভবতী হওয়ার লক্ষন। হরমোনের তারতম্যের কারনেই এই পরিবর্তন দেখা যায়।

৫) মুড সুইংস:

গর্ভবতী হওয়ার লক্ষণ বোঝার জন্য মেজাজ খুব গুরুত্বপুর্ণ ভূমিকা পালন করে কারন হরমোনের হেরাফারিতে মেজাজ সর্বক্ষন এক থাকে না, যখন তখন পরিবর্তন ঘটে কখন হঠাৎ করে মাথা গরম হয়ে গেল আবার কখনও মন খুব বিষণ্ণ আবার কখনও ফুরফুরে মেজাজ তো কখনও অবসাদ্গ্রস্থ মনে হয়।

৬) ক্লান্তি অনুভুতি:

এই সময় শরীরে ক্লান্তিভাব অনুভূত হয়, ঝিমুনি লাগে, সারাক্ষন ঘুম ঘুম ভাব থাকে। যার ফলে বুঝতে পারবেন আপনি সন্তানসম্ভবা।

৭) শরীরের তাপমাত্রা বৃদ্ধি:

গর্ভবতী হলে একটানা ১৮ থেকে ২০ দিন আপনার শরীরের তাপমাত্রার তারতম্য লক্ষ্য করবেন। স্বাভাবিক তাপমাত্রার তুলনায় অনেকটা বেশী থাকে।

৮) ঘন ঘন প্রস্রাব:

গর্ভাবস্থার প্রাথমিক পর্যায়ে কিডনিতে রক্ত সঞ্চালনের হার বেড়ে যায়। এক ফলে মুত্রথলি সাধারণ সময়ের তুলনায় তাড়াতাড়ি পুর্ণ হয়ে যায় যার দরুন ঘন ঘন প্রস্রাব পেয়ে থাকে।

গর্ভবতী হওয়ার প্রথম সপ্তাহের লক্ষণ:

একটি মেয়ের জীবনে সবথেকে সুন্দর মুহুর্ত হল যখন সে জানতে পারে তার গর্ভে সন্তান রয়েছে, আর এই সুন্দর অনুভুতি আপনি প্রথম সপ্তাহে কিভাবে বুঝবেন তার ৫টি সহজ উপায়।

রক্তক্ষরণ:

গর্ভবতী হওয়ার প্রথম সপ্তাহের লক্ষণ বুঝবেন যদি আপনার মাসিকের মতো ৬- ১২ দিন টানা সামান্য পরিমাণে রক্তপাত হতে থাকে।

অদ্ভুত স্বাদ উপলব্ধি:

সাধারণত গর্ভাবস্থার প্রথম সপ্তাহে রোজকার দিনের স্বাদের তুলনায় অন্য ধরনের স্বাদ অনুভব করবেন, অনেকটা ধাতব স্বাদের আস্ফালন ঘটে। মুখ থেকে দুর্গন্ধ আসে। এই সময় অনেকে টক খেতে ভালবাসেন।

স্বপ্ন:

বৈজ্ঞানিক মতে, সাধারণত সন্তান গর্ভে এলে মায়েরা গর্ভবতী হওয়ার স্বপ্ন দেখে থাকেন, আর এই স্বপ্ন প্রায়শই তারা দেখেন, এছাড়া তারা অনেক সময় অস্বাভাবিক স্বপ্নও দেখে থাকেন ।

কালো দাগ:

অনেকসময় মুখে, গালে, হাতে -পায়ে কালো ছোপ ছোপ দাগ দেখা যায়, একে মেলাস্মা বলে, গর্ভধারনের সময় ত্বকের সংবেশ্নশীলতা বেড়ে যায় হলে এই ধরনের দাগ দেখা যায়। এই গর্ভধারনের খুব গুরুতবপূর্ণ লক্ষন।

মাথা ঘোরানো:

গর্ভধারনের প্রথম সপ্তাহের লক্ষন হল মাথা ঘোরানো। যখন তখন মাথা ঘুরে যাওয়া, চোখে অন্ধকার দেওয়া , শরীর দুর্বল হয়ে যায় এর কারন কিছুটা হরমোনের তারতম্যের ফলে।

সহবাসের কতদিন পর গর্ভবতী হয় একটি মহিলা:

সহবাসের কতদিন পর গর্ভবতী হতে পারেন একজন মহিলা তা সাধারণত সম্পূর্ন নির্ভর করে তার শারীরিক ক্ষমতার উপর। কিন্তু বেশীরভাগ ক্ষেত্রে সহবাসের ২ থেকে ৩ সপ্তাহের মধ্যে বোঝা যায় আপনি গর্ভবতী কিনা। সহবাস করলেই যে আপনি গর্ভবতী হয়ে পড়তে পারেন এটা ভুল ধারনা। কিছু নির্দিষ্ট উপায় থাকে যেগুলি সঠিক ভাবে মেনে চললেই গর্ভবতী হতে পারেন। তাই সহবাসের কতদিন পর গর্ভবতী হতে পারেন তা ক্ষেত্রবিশেষে নিভর করে।

সহবাসের পর অনেকেই বুঝতে পারেন না সে গর্ভবতী হয়েছেন কিনা। নানা প্রশ্ন, দ্বিধা থেকে যায় অনেকের মনে। কিন্ত গর্ভবতী হওয়ার লক্ষণগুলি জানা থাকলে আপনি নিজেই বুঝে যেতে পারবেন যে আপনি গর্ভবতী কিনা। এর ফলে প্রথম দিন থেকে আপনি মাতৃত্বের স্বাদ উপলব্ধি করতে পারবেন। এছাড়াও সহবাসের কতদিন পর গর্ভবতী হলেন তারও হিসেব থাকবে আপনার নিকট।

আরও পড়ুন – ডায়াবেটিস সারানোর উপায়

গর্ভবতী হওয়ার লক্ষণগুলি জেনে আপনি কতটা উপকৃত হলেন আমাদের জানাতে ভুলবেন না। এই বিষয়ক আরও কোন তথ্য সম্বন্ধে জানার ইচ্ছা থাকলে সেটিও অবশ্যই জানাবেন। এই ধরনের শরীর ও স্বাস্থ্য বিষয়ক আপডেট পেতে অবশ্যই ফলো করুন আমাদের পেজটি।

7 thoughts on “গর্ভবতী হওয়ার লক্ষণ কি? সহবাসের কতদিন পর গর্ভবতী হয়

  1. Nice story u have written in this bulletin.thank you for serving us this kind of information.thank u once again.

  2. ধন্যবাদ স্যার আমি অত্যান্ত আনন্দের সাথে জানাচ্ছি যে আপনার টীপ্স গুলোই আমার আগামীর পথ চলা
    আশা করবো আল্লাহ যেন আপনাকে আরো জ্ঞান দান করুন,,,,,,,,আমিন

  3. আমি জানতে চাই গর্ভবতী হওয়ার একদম প্রথম সপ্তাহে কি মাসিকের মতো পেটব্যথা হয়??

Leave a Reply

Top