You are here
Home > Don't Miss > রান্নাবান্না ও রূপচর্চা > মিষ্টি পোলাও রান্নার প্রণালী | Bengali Mishti Pulao Recipe

মিষ্টি পোলাও রান্নার প্রণালী | Bengali Mishti Pulao Recipe

mishti pulao recipe

আজকের আমাদের আলোচ্য বিষয় হল বাঙালির অত্যন্ত প্রিয় খাবার মিষ্টি পোলাও রান্নার প্রণালী (Bengali Mishti Pulao Recipe)।

পোলাও আর বাঙালি ওতপ্রতভাবে জড়িত। এই পোলাও বাঙালিয়ানাকে চিহ্নিত করে। আর তাই নিঃসন্দেহে বলা যায় ভোজন রসিক বাঙালির একটি অত্যন্ত প্রিয় খাবার পোলাও। পোলাও ছাড়া বাঙালির যে কোনও অনুষ্ঠানের, উৎসবের খাওয়ার আমেজটাই জমে ওঠে না।

শুধু বিয়ে বাড়ি, পূজা মন্ডপ বা অনুষ্ঠান বাড়িই কেনো ?? বাড়িতে কোনো বিশেষ অনুষ্ঠান বা অতিথি আসলে এই পোলাও আমরা ঘরেতেই বানিয়ে নিতে পারি যার স্বাদ হয়ে উঠতে পারে একদমই সুস্বাদু অনবদ্য ও রেস্তরাঁর সমান।

এই পোলাও আমরা অনেকেই ঘরে বানানোর চেষ্টা করি, আর এটা তৈরী করতে গিয়ে অনেক সমস্যায় ও পড়ে যাই
অনেক সময় ঝরঝরে হয় না, আবার কখনো নরম হয়ে যায় কখনো বা সুস্বাদু হয়ে ওঠে না

তাই,
সহজেই ঘরেতেই বানিয়ে ফেলুন ঝরঝরে সুস্বাদু পোলাও, সে মিষ্টি পোলাও বা
বাসন্তী পোলাও হোক অথবা সাদা পোলাও বা বিয়ের বাড়ির শাহি পোলাও।

মিষ্টি পোলাও রান্নার প্রণালী (Bengali Mishti Pulao Recipe)

উপকরণঃ

  • গোবিন্দ ভোগ চাল
  • কাজুবাদাম, কিসমিস, ঘি,
  • গোটাগরম মশলা
  • গরম মশলা গুঁড়ো
  • তেজপাতা
  • গোলমরিচ গুঁড়ো
  • হলুদ গুঁড়ো
  • আদাবাটা
  • চিনি
  • লবন
  • সাহা জিড়ে, সাহা মরিচ(অল্প পরিমাণে নিয়ে শুকনা কড়াইতে ভেজে
  • গুঁড়া করে নিতে হবে)

প্রণালীঃ

২০০ গ্রাম (২ কাপ)গোবিন্দ ভোগ চাল নিয়ে জল দিয়ে ধুয়ে জল ঝরিয়ে নিয়ে ৪০ মিনিট রেখে দিতে হবে যাতে চাল থেকে সব জল ঝরে গিয়ে চালটা ঝরঝরে হয়।

এবার জল ঝরিয়ে রাখা গোবিন্দ ভোগ চালটা একটা পাত্রে নিয়ে তার সাথে ২ চা চামচ ঘি, পরিমান মত লবন, ৩ চা চামচ চিনি(যেহেতু পোলাও একটু মিষ্টি মিষ্টি হয় তাই চিনিটা নিজেদের স্বাদ অনুযায়ী দিতে পারেন), অর্ধেক চা চামচ হলুদ গুঁড়ো, অর্ধেক চা চামচ গরম মশলা গুঁড়ো, অর্ধেক চা চামচ গোলমরিচ গুঁড়ো, ১ চা চামচ আদাবাটা এসমস্ত কিছু দিয়ে চালটা ভালো করে মাখিয়ে নিয়ে ঢাকা দিয়ে ৩০ মিনিট রাখবো।

এরপর – – –

কড়াইতে এক চা চামচ ঘি, ১ টা তেজপাতা, গোটাগরম মশলা(৩-৪ টা ছোটো এলাচ, কয়েকটা লবঙ্গ, দারুচিনি ২ টা) দিয়ে অল্প আঁচে এগুলি ভাজতে হবে, যাতে পুড়ে না যায়।
এতে কাজুবাদাম, কিসমিস(কাজুবাদাম ও কিসমিসের পরিমাণটা নিজেদের ইচ্ছানুযায়ী দেওয়া যেতে পারে) এসব দিয়ে ২ মিনিট সময় ধরে একটু অল্প ভাজতে হবে।

২ মিনিট সময় ধরে কাজুবাদাম কিসমিস অল্প আঁচে ভাজার পর আগে থেকেই মেখে রাখা চালটা দেবো, অল্প আঁচে ৩ মিনিট সময় ধরে চালটা ভাজতে হবে, চালটা একটু ঝরঝরে হয়ে আসলে ৩ কাপ গরম জল দিতে হবে। যে কাপে চাল পরিমাপ করা হয়েছে সেই কাপে জল পরিমাপ করে দিতে হবে, যতটা চাল তার থেকে এককাপ বেশি জল দিতে হবে তাহলে জলের পরিমাণ ঠিক হবে আর পোলাও ঝরঝরে ও হবে।
অবশ্য গরম জল দিতে হবে পোলাও তে ঠান্ডা জল দিলে পোলাও গলে যেতে পারে।

জল দেওয়ার পর আঁচটা জোড়ে দিয়ে বেশ কিছুক্ষণ ফুটতে দিতে হবে। এরপর আঁচটা কমিয়ে অল্প করে দিয়ে ৫ মিনিট ঢাকা দিয়ে পোলাওটা দমে হতে দেবো। ৫ মিনিট পর ঢাকা খুলে পোলাওটা ঝরঝরে হয়েছে দেখে নিয়ে এর মধ্যে আগে থেকে গুঁড়া করে রাখা সাহা মরিচ ও সাহা জিড়ের গুঁড়া উপরে ছড়িয়ে দেবো এবং কয়েকটি গোটা কাঁচালঙ্কা উপরে দেবো সাজিয়ে পরিবেশনের জন্য। এভাবে ঘরেই বানিয়ে নিতে পারেন ঝরঝরে সুস্বাদু মিষ্টি পোলাও বা বাসন্তী পোলাও। এই পোলাও আলুরদম, চিকেন কষা, মটন কষা দিয়ে খাওয়া যেতে পারে।

বিয়ে বাড়ির শাহী মিষ্টি পোলাও রান্নার প্রণালী (Bengali Mishti Pulao Recipe)

উপকরণঃ

  • বাসমতি চাল ২ কাপ
  • তেল – ২ কাপ
  • গোটাগরম মশলা- (ফোরনের জন্য)
  • তেজপাতা-১টা
  • শাহী জিরা – ১ চা চামচ
  • আদাবাটা- ১ চা চামচ
  • বাদামবাটা- ১ চা চামচ
  • গুঁড়াদুধ – ২ চা চামচ
  • কিসমিস- (পছন্দ অনুযায়ী)
  • ঘি- ২ চা চামচ
  • লবণ(স্বাদ মতো)
  • চিনি ( নিজেদের পছন্দ অনুযায়ী)

আরও পড়ুন ভোজন রসিক বাঙালির জন্য আজকের সমস্ত রেসিপি হলো পোস্ত বাহারী

প্রণালীঃ

শাহী পোলাও বানাতে পোলাও চাল বা গোবিন্দ ভোগ চাল অথবা বাসমতি চাল ব্যবহার করা যেতে পারে।

এখানে বাসমতি চাল ব্যবহার করছি। প্রথমে একটা পাত্রে ২ কাপ বাসমতি চাল নিয়ে জল দিয়ে ধুয়ে, জল ঝরিয়ে নিয়ে চালটা ঝরঝরে করতে ৩০ মিনিট রেখে দিতে হবে।

এরপর কড়াইতে একটু তেল দিয়ে ১ টা আস্ত পিয়াজ কুচিয়ে নিয়ে ওটাকে অল্প আঁচে একটু ভেজে নিতে হবে
হালকা বাদামী রঙ আসলে তেল থেকে পিয়াজটা তুলে রাখবো বেরেস্তা হিসাবে।

এরপর কড়াইতে ঐ বেরেস্তা ভাজার অবশিষ্ট তেলটা দেবো এতে সুন্দর একটা স্বাদ আসবে। কড়াইতে তেলের মধ্যে ফোরন হিসাবে দেবো ১ টা তেজপাতা, কয়েকটা লবঙ্গ, ৩-৪ টা ছোটো এলাচ(এলাচগুলির মুখটা একটু ফাটিয়ে দেবো), ১ টা বড়ো এলাচ, ২ টা দারুচিনি
এই সঙ্গে দেবো অল্প একটু শাহী জিরা(শাহী জিরা বিয়ে বাড়ির স্বাদ আনে) এরপর ৩-৪ টা পিয়াজ কুচানো দেবো, এই পিয়াজ কুচি দিয়ে একটু হালকা ভাজবো এরপর এতে দেবো আগে থেকেই জল ঝরিয়ে রাখা চালটা, এবার এটাকে ২-৩ মিনিট সময় ধরে খুব ভালো করে নাড়াচাড়া করে এতে দেবো এক চা চামচ আদাবাটা দিয়ে একটু নাড়াচাড়া করে এতে দেবো ৪ কাপ গরম জল(যে কাপে চাল পরিমাপ করা হয়েছে সেই কাপে জল পরিমাপ করে দিতে হবে, যতটা চাল তার থেকে এককাপ জল বেশি দিতে হবে তাহলে জলের পরিমাণ ঠিকঠাক হবে) এবার ভালো করে নাড়িয়ে নিয়ে স্বাদ মতো লবন দেবো। এরপর এতে দেবো ২-৩ চা চামচ কাঠবাদামবাটা(কাজুবাদাম বাটা ও দেওয়া যায়) এটাকে ভালো করে নাড়িয়ে নিয়ে এতে দেবো ২ চা চামচ গুঁড়াদুধ। বিয়ে বাড়ির শাহী স্বাদ আনতে এই দুধগুঁড়া অবশ্যই দিতে হবে এবং এই গুঁড়াদুধ পোলাওটা ঝরঝরে করতে সাহায্য করে। এই গুঁড়াদুধ দেওয়ার পর ভালো করে নাড়িয়ে নিতে হবে। এবার এতে কিছুটা কিসমিস(পছন্দ অনুযায়ী) দেবো, কিসমিস দেওয়ার পর ঢেকে দেবো প্রায় ১৫ মিনিট মাঝারি আঁচে এটা হতে দেবো, পুরোপুরি জলটা শুকনো হওয়া অবধি অপেক্ষা করবো।
১৫ মিনিট পর ঢাকা খুলে
ভালো করে নাড়াচাড়া করে নিয়ে এতে ২ চা চামচ ঘি দেবো। ঘি দেওয়ার পর আবার ভালো করে নাড়াচাড়া করে ১০ মিনিট এটাকে ঢাকা দিয়ে দমে রাখবো খুবই অল্প আঁচে।
১০ মিনিট পর ঢাকা খুলে ভালো করে নাড়িয়ে , পুরোপুরি জলটা শুকিয়ে গেলে কড়াইটা নামিয়ে দিতে হবে।
এবার পোলাও পরিবেশনের জন্য আগে থেকেই তৈরী করে রাখা পিয়াজ বেরেস্তা পোলাও এর উপরে ছড়িয়ে দেবো।
এভাবেই অতি সহজেই ঘরেই বানিয়ে নেওয়া যায় বিয়ে বাড়ি স্বাদের শাহী পোলাও।

উপসংহার :-

এভাবেই আমরা অতি সহজেই ঘরেই বানিয়ে ফেলতে পারি মিষ্টি পোলাও বা বিয়ে বাড়ি স্বাদের শাহী পোলাও এবং বাড়িতেই অনুষ্ঠান বা উৎসবের আমেজ জমিয়ে আমাদের প্রিয় মানুষদের কাছে প্রিয় হয়ে উঠতে পারি।
আপনারা অবশ্যই এটা বাড়িতে বানিয়ে ফেলুন আর নিজের কাছের মানুষদের কাছে হয়ে উঠুন জনপ্রিয়।।

Leave a Reply

Top