You are here
Home > Don't Miss > রান্নাবান্না ও রূপচর্চা > ডালগোনা কফি বানানোর পদ্ধতি: বাড়িতেই বানিয়ে ফেলুন নিমেষে

ডালগোনা কফি বানানোর পদ্ধতি: বাড়িতেই বানিয়ে ফেলুন নিমেষে

ডালগোনা কফি বানানোর পদ্ধতি

ভোজন রসিক বাঙালির ভোজনের সাথে সাথেই চা এর সাথে টা এবং একসাথে জমিয়ে আড্ডা না হলে চলেই না। সে পাড়ার মোড়ে চা দোকান হোক বা অফিস ক্যান্টিন অথবা কফিশপ হোক। তাই তো লকডাউনে গৃহবন্দি মানুষ মেজাজ ফুরফুরে রাখতে ডালগোনা কফি বানানোর পদ্ধতি আয়ত্ত করে নিয়েছে।

দীর্ঘদিন লকডাউনের কবলে গৃহবন্দি মানুষ। যদিও কেউ কেউ ওয়ার্ক ফর্ম হোম। তবে অধিকাংশ মানুষই স্তব্ধ কর্মজীবনে। তাই এই দীর্ঘ একঘেঁয়েমী সময় কাটানোর জন্য ফেসবুক, ইন্টারনেট তো আছেই সেই সাথে রান্নাঘরে ও ঢুকে পড়ছে বাহারি রেসিপি আবিস্কারে। গৃহবন্দি ফিল্ম স্টার, ক্রীড়া তারকা, শিল্পীমহল থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষ সবাই নিত্যনতুন খাবার বানিয়ে ব্যস্ত রাখছে নিজেদেরকে। এরই মধ্যে ডালগোনা কফি বানানোর পদ্ধতি বিশেষ উল্লেখযোগ্য।

লকডাউন চলাকালীন সমস্ত টী স্টল, কফিশফ বন্ধ থাকায় অতি সহজেই ডালগোনা কফি বানানোর পদ্ধতি আয়ত্ত করেছে মানুষ এবং তার অভিজ্ঞতা ও শেয়ার করেছেন ফেসবুকে। আর তা নিমেষেই আকৃষ্ট করেছে কফিখোরদের এবং ফেসবুকে সাড়া ফেলে দিয়েছে।

আজকের আলোচনায় আমরা দেখে নেবো –

  • ডালগোনা কফি আসলে কি? কোথা থেকে উৎপত্তি
  • ডালগোনা কফি বানানোর পদ্ধতি
  • ডালগোনা কফি-র জনপ্রিয়তায় পৌঁছানো

ডালগোনা কফি আসলে কি? কোথা থেকে উৎপত্তি:

ঐতিহাসিকদের মতে ডালগোনা কফির উৎপত্তি ভারত মহাদেশে মূলত: ভারত ও পাকিস্তানে এই কফি প্রচলিত ছিল । কিন্তু তা ‘ডালগোনা’ নামে পরিচিত ছিল না। পূর্বে ‘ফেঁতিহুই’ নামে পরিচিত ছিল। ফেটিয়ে ফেটিয়ে ফেনার মতো করে কফি বানানো হতো বলে এমন নাম।

ভারত, পাকিস্তান থেকে ম্যাকাও এবং তারপর দক্ষিণ কোরিয়ায় সুদীর্ঘ পথ পাড়ি দিয়ে এই কফি ‘ডালগোনা কফি’ নামে পরিচিত হয়। কোরিয়া থেকে
‘ডালগোনা’ শব্দটি পাওয়া গিয়েছে।

আসুন দেখে নিন চটজলদি ডালগোনা কফি বানানোর পদ্ধতি:

উপকরণ:

১. ঠান্ডা ফোটানো দুধ – ১কাপ
২. কফি – ২ চা চামচ
৩. গরম জল – পরিমাণ মতো
৪. চিনি – স্বাদ অনুযায়ী
৫. বরফ – প্রয়োজন মতো

মাত্র এই ৫ টি উপকরণ দিয়ে ১০ মিনিটে বানিয়ে ফেলুন ডালগোনা কফি।

পদ্ধতি:

একটি পাত্রে পরিমাণ মতো গরম জল, ২ চা চামচ কফি ও স্বাদ অনুযায়ী চিনি নিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিন। ভালো করে ফেটাতে হবে যতক্ষণ না ঘন ক্রীম বা ফোমের আকার নিচ্ছে। বাড়িতে ইলেকট্রিক বিটার বা হ্যান্ডবিটার থাকলে নিমেষেই ওটা দিয়ে ভালো করে ফেটিয়ে নিতে পারেন।

এরপর একটি কফিমগে প্রয়োজন মতো বরফের কুচি নিন তাতে পূর্বে ফোটানো ১ কাপ ঠান্ডা দুধ ঢেলে দিন। এবং উপরে ফেটানো কফির ফোমটা দিন। শেষে গার্ণিশের জন্য উপর দিয়ে কফি গুঁড়ো বা চকলেট গুঁড়ো দিয়ে পরিবেশন করুন।

ডালগোনা কফি-র জনপ্রিয়তা:

একদিকে লকডাউন অন্যদিকে গ্রীষ্মের প্রখরতা, এই অস্থির পরিস্থিতিতে নিজেকে চনমনে রাখতে ও মনকে ফুরফুরে রাখতে এককাপ চা বা কফির চুমুক অবশ্যই দরকার। যে কফির চুমুকে মন ভরে ওঠে ও প্রাণ ভরে ওঠে স্বস্তিতে। তাইতো ডালগোনা কফি হয়ে উঠেছে একটু স্বস্তির আশ্বাস।

তাছাড়া, ডালগোনা কফির উপরের সাদা ফেনার মতো লেয়ার আসলে ঘন দুধেরই আস্তরণ। যার স্বাদ অতুলনীয়। আর এই লকডাউনে ডালগোনা কফি মানুষের গৃহবন্দি উৎকন্ঠা, অস্থিরতা কাটিয়ে বিনোদনের ফুরফুরে আমেজে মাতিয়ে তুলেছে।

তাইতো লকডাউনে দীর্ঘ সময়ের একঘেঁয়েমী কাটিয়ে উঠতে ফেসবুক ব্যবহারকারী এমন কেউ নেই যে ডালগোনা কফি বানানোর পদ্ধতি ট্রাই করেনি। সারা ফেসবুক জুড়ে ডালগোনা কফির একের পর এক পোস্ট, ডালগোনা কফি চ্যালেঞ্জ এমনকি জুড়েছে বাহারি নাম ‘কোয়ারেন্টাইন কফি’। ফলে সোশ্যাল মিডিয়ার ট্রেন্ডিং হয়ে দাঁড়ায় ডালগোনা কফি এবং মন মাতানো ডালগোনা কফির স্বাদ জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে।

আরও পড়ুন – পছন্দের ম্যাগির ৯ রকম রেসিপি শিখে নেওয়া যাক

বলাবাহুল্য, আপনারা যারা এখনও ডালগোনা কফির মন মাতোয়রা স্বাদ বঞ্চিত, এখনই বানিয়ে ফেলুন। আমাদের পেজে শেয়ার করা চটজলদি ডালগোনা কফি বানানোর পদ্ধতি দেখে বাড়িতেই বানিয়ে ফেলুন এবং কেমন লাগলো সেটা জানাতে ভুলবেন না।

এরকমই আরও মজাদার খাবার রেসিপি ও স্বাস্থ্য সম্পর্কিত টিপস জানতে আমাদের সাথে থাকুন।

Leave a Reply

Top