You are here
Home > Don't Miss > সম্পর্ক > মিথ্যা ভালোবাসা চেনার উপায় (ভুল সম্পর্ক)

মিথ্যা ভালোবাসা চেনার উপায় (ভুল সম্পর্ক)

মিথ্যা ভালোবাসা চেনার উপায়

আজকাল আমাদের সমাজে আমরা যারা সম্পর্কে আছি নিজেরাই নিশ্চিত নই, সম্পর্কটি আদৌ সত্যি কিনা। ভাবতে ভাবতে কিনারা পাইনা আমার উল্টোদিকের মানুষটা সত্যিকারের আমাকে ভালোবাসে কিনা। আমাদের চারপাশে হামেশাই হচ্ছে সম্পর্ক দুই থেকে তিন মাস মাত্র টেকে, তারপরেই সম্পর্ক কোনোনাকোনো কারণ দেখিয়ে ভেঙে যায়। তখন আমরা নিজেরাই নিজেদের কে বোঝাই কত রকমের কত যুক্তি দিয়ে। তাহলে আসুন দেখে নি মিথ্যা ভালোবাসা চেনার উপায় ।

১. ভালোবাসা নাকি স্বার্থ :-

আপনি যদি কোনো সম্পর্কে আসেন, তাহলে বোঝার চেষ্টা করুন আপনার উল্টোদিকের মানুষটা আপনাকে কিছু দিয়ে খুশি হয় নাকি সে আপনার থেকে ছলে কৌশলে ক্রমাগত চাইতে থাকে। কারণ সত্যি ভালোবাসা দেওয়াতেই খুশি পাওয়া যায়,নেওয়াতে নয়। যে আপনার থেকে শুধুই চেয়ে যাবে তার কাছে ভালোবাসার থেকে অন্যকিছু বেশি গুরুত্বপূর্ণ। তাই যদি আপনি মনে করেন আপনার প্রিয় মানুষটাকে জিনিস দেওয়া বন্ধ করলে আমাকে ছেড়ে দিতে পারে, তাহলে ওই সম্পর্কতে থাকার চেয়ে না থাকা অনেক বেশি সুখের। কারণ সম্পর্ক কোনোভাবেই স্বার্থ নিয়ে হয়না। ভালোবাসা সর্বদা স্বার্থহীন।

২. গুরুত্ব না দেয়া :-

মিথ্যা ভালোবাসা চেনার উপায়, আপনি উপলব্ধি করুন আপনার প্রিয় মানুষটি আপনার খেয়াল রাখছে কিনা। যে মানুষটা আপনাকে ভালোবাসবে সেই মানুষটির কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো আপনিই থাকবেন। আপনার চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ তার কাছে আর কোনো কিছুই থাকবে না। তাই ভালো মতো বোঝার চেষ্টা করুন সে আপনাকে গুরুত্ব দিচ্ছে কিনা। আপনার বলা কথাগুলোকে আপনার প্রিয় মানুষটি কতটা গুরুত্ব দিচ্ছে! বা আপনার বলা কথা গুলোকে সে উড়িয়ে দিচ্ছে কিনা সেদিকে নজর রাখার চেষ্টা করুন। আর সে যদি আপনাকে বা আপনার বলা কথাগুলিকে গুরুত্ব কম দেয়, তাহলে বুঝে নেবেন আপনি ভুল সম্পর্কে আছেন।

৩. গোপন করা :-

আপনি ভালো ভাবে খেয়াল করে দেখুন সে আপনার কাছে কোনো কিছু গোপন করছে কিনা বা মিথ্যা কথা বলছে কিনা। সবকিছু আপনার সাথে শেয়ার করছে কিনা। সত্যিই কথা আপনাকে বলছে কিনা। কেননা আমরা যাকে ভালোবাসি তাকে আমাদের প্রতিদিনের জীবনের তুচ্ছ কথা গুলোও শেয়ার করতে ভুল করিনা। ছোটোখাটো যাই হোক অনায়াসে বলি ,সব তাকে সত্যিই বলে অনেকটা হাল্কা হই। ধরুন আপনার প্রিয় মানুষটি কোথাও কোনো বন্ধুর সাথে হয়তো অফিস টিফিনেই একসাথে খাবার খাচ্ছে। কিন্তু আপনাকে সেই বন্ধুর নাম বলতে গিয়ে ইতস্তত বোধ করছে, তখন এটাই বুঝে নেবেন আপনাদের সম্পর্কে কোনো গোলমাল না থাকলে আপনার প্রিয় মানুষটির আপনাকে লুকিয়ে যেতনা, বরং সাদা মনেই তার বন্ধুটির নাম বলে দিতো। আসলে যেখানে মিথ্যা আছে সেখানে কোনোদিন সত্যি প্রেম থাকতে পারে না। কারণ প্রেম সর্বদা সততার আশ্রয়ে চলে, মিথ্যার প্রশ্রয়ে নয়।

৪. সময় না কাটাতে চাওয়া :-

আপনার প্রিয় মানুষটি আপনার সাথে সময় কাটাতে চায় নাকি সে বোরিং অনুভব করে বা আপনাকে সময় না দেওয়ায় অজুহাত দেয়। এইটি আপনি ভালো করে নজর করুন। কারণ সে যদি আপনাকে সত্যিই ভালোবাসে তাহলে সে সবসময় চাইবে আপনার সাথে সময় কাটাতে। কিন্তু আপনি শুধু চেয়ে গেলেন আর অপর মানুষটা ব্যস্ততার অজুহাত দিতে থাকলো, তারমানে আপনি বুঝে নিন আপনি মিথ্যা ভালোবাসায় জড়িয়ে পড়েছেন।

৫. সম্মান করা:-

আমরা যখন কারুর সাথে সম্পর্কে আসি, তখন একে অপরের প্রতি সম্মান দেওয়াটাও অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। যদি কখনো দেখেন আপনার সামনেই আপনার প্রিয় মানুষটা আপনাকে নিয়ে তার বন্ধুদের কাছে মজার খোরাক করছে, তাহলে বুঝে নেবেন আপনার সম্পর্কটা ভুল মানুষের সাথে। কেননা যে আপনাকে ভালোবাসবে সে কোনোদিন তার নিকটজনের কাছে আপনাকে ছোটো করবে না। এটার পাশাপাশি আরেকটি বিষয়ও বিশেষ লক্ষ্যণীয় আর যখনই এটি ঘটতে থাকবে, আপনার উচিত যতো কষ্টই হোক সেই সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসা। কারণ আমরা মানুষ আত্মসম্মান আমাদের সকলের আছে।

৬. কথা না রাখা :-

কথা রাখা হলো একটি বড়ো দিক যেকোনো সম্পর্কতেই। হয়তো আপনাদের কোথাও ঘুরতে যাবার পরিকল্পনা ছিল, কিন্তু সে আপনাকে ঘুরতে নিয়ে যেতে পারেনি। তবে এই ভুলটা খুবই স্বাভাবিক ব্যাপার। কিন্তু এই ভুলটার জন্য তার মধ্যে যদি কোনো প্রকার খারাপ লাগা না থাকে বা অনুশোচনা বোধ যদি না থাকে তাহলে এর থেকে এটাই বোঝা যায় আপনি তার জন্য কষ্ট পেলেন, বাঁচলেন কি মরলেন তার কাছে এগুলি নিয়ে বিন্দুমাত্র মাথা ব্যাথা নেই। অর্থাৎ আপনার জন্য তার কিছুই যায় আসে না। তাহলে এটির থেকে প্রমাণিত আপনার প্রিয় ব্যক্তিটি আপনার সাথে শুধুমাত্র টাইমপাস করতেই এসেছে। তবে পুরোটা বিষয়টিকে কিন্তু আপনাকেই অনুধাবন করতে হবে। আর এটি যদি মিলে যায় তাহলে বুঝে নেবেন আপনি আপনার প্রিয় মানুষটির কাছে মূল্যহীন একজন জীব মাত্র।

৭. অনুভূতিহীন আচরণ :-

মিথ্যা ভালোবাসা চেনার উপায়, কিছু কিছু ক্ষেত্রে অনুভূতিহীন বা রুক্ষ আচরণ বড়ো কষ্টদায়ক। আর এই আচরণটি থেকে সবচেয়ে বেশি বুঝতে পারবেন আপনার প্রিয় মানুষটি আপনাকে আদৌ ভালোবাসে নাকি বাসেনা। সামান্য একটা উদাহরণ ধরুন, আপনি আর আপনার প্রিয় মানুষটি রাস্তা দিয়ে হাঁটছেন, এমন সময় কোনো বৃদ্ধ হয়তো রাস্তা পেরোতে পারছেনা। তখন যদি আপনার প্রেমিক ইচ্ছে করে না তাকিয়ে চলে যায় আপনাকে নিয়ে; উপরন্তু আপনি এগোতে চাইছেন সেই বৃদ্ধের কাছে আপনাকেও না যেতে দেয় তাহলে বুঝবেন আপনার প্রিয় মানুষটি পাথর ছাড়া আর কিছুই নয়। আর পাথরের মন বলে কিছু থাকেনা। আপনিও যদি কখনো ওই পরিস্থিতির স্বীকার তখনো আপনাকে সে যে ছেড়ে আসবেনা তার কোনো নিশ্চয়তা নেই।

৮. কষ্ট না হওয়া :-

আমরা যাকে ভালোবাসি তার যেকোনো কষ্টে কষ্ট না পাওয়াটা অসম্ভব ব্যাপার। আপনার প্রিয় মানুষটির কষ্টে যেভাবে আপনি সমব্যথী, ঠিক উল্টোদিকের মানুষটা আটনার মতোই আপনার কষ্টের ব্যাপারে কষ্ট পায় কিনা সেটিও আপনাকে বুঝে নিতে হবে। ধরুন আপনার বসের সাথে আপনার খুব ঝামেলা হলো, আপনাকে চাকরি থেকে তিনদিনের জন্য বসিয়ে দিলো আর সেটা কেঁদে কেঁদে আপনি আপনার প্রিয় মানুষটাকে বললেন। তখন দেখবেন আপনার প্রিয় মানুষটির আচরণ আপনার প্রতি ঠিক কি রকম! যদি দেখেন স্বাভাবিক অথবা আপনার কথাতে সে বিরক্ত হয়ে কথা ঘুরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছে তাহলে অতি অনায়াসে বুঝে নিন আপনাকে সে আদৌ ভালোবাসে কিনা। ভালোবাসা নাকি সবটুকুই নাটক।

আরও পড়ুন – পুরুষরা পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়ে যে কারণে

৯. মন নাকি শরীর :-

আজকাল আমাদের সম্পর্ক গুলো বড়ো যান্ত্রিক হয়ে গেছে। অনুভব যেখানে বড্ড কম। যেখানে কিনা মন চাইতে শরীর বেশি প্রাধান্য পায়। আর আমরা হয়তো আমাদের প্রিয় মানুষটিকে খুশি করতে তার সকল হ্যাঁ গুলোতে হ্যাঁ মেলাই। কিন্তু এটাই আমরা সবচেয়ে বেশি ভুল করি, নিজের মনের কথা না শুনে অপরজনকে খুশি করার প্রচেষ্টায়। আপনি খেয়াল করবেন আপনার প্রিয় মানুষটি আপনার সাথে ওপেন জায়গায় বেশি সময় কাটাতে চায়, নাকি বন্ধ ঘরের অন্ধকার বেশি পছন্দ করে! যদি দেখেন চারদেয়ালের বন্ধ ঘরের মধ্যে আপনাকে নিয়ে প্রায়শই থাকতে চায়, তাহলে চোখ বন্ধ বুঝে নিন , আপনি সম্পূর্ণ ভুল সম্পর্কে আছেন।

আমাদের মন এমন একটি জিনিষ সেটি কখন যে অপাত্রে দান হয়ে যায় নিজেরাই বুঝতে পারিনা। তাই কাউকে নিজের মন দেওয়ার আগে ভালো করে খেয়াল করুন সে আদৌ আপনার ভালোবাসার যোগ্য কিনা। এই বিশ্বে আমরা যেখানে টাকা আমানত করতে গিয়ে না ঠকবার ভয়ে দশবার ভাবি , সেখানে মন নামের গোটা আমিটাকে কেন ভুল মানুষের হাতে সমর্পণ করবো! তাই যেকোনো সম্পর্কে আসার আগে বারবার ভাবুন, তারপরেই পা বাড়ান। মিথ্যা ভালোবাসা চেনার উপায় গুলি কেমন লাগলো কমেন্ট করে জানান।

Leave a Reply

Top