You are here
Home > Editor's pick > হাতের রেখা দেখে ভাগ্য বিচার | নিজের ভাগ্য নিজে জানুন

হাতের রেখা দেখে ভাগ্য বিচার | নিজের ভাগ্য নিজে জানুন

হাতের রেখা দেখে ভাগ্য বিচার

আমরা আমাদের ভাগ্য গননার জন্য হামেশাই বিভিন্ন জ্যোতিষীদের কাছে যাই ; সেই জ্যোতিষীদের ইচ্ছানুসারে অনেক রকম বিধি নিষেধ, মূল্যবান পাথর সোনা রূপা ইত্যাদি দিয়ে পরিধান করে ফেলি, কিন্তু সেভাবে আমাদের জীবনে দৈনন্দিন কোনো পরিবর্তন আসেনা। আগে যে সমস্যা গুলি ছিল, সেই সমস‌্যা থেকে মুক্তির পথ আর আসেনা। আর তখন সেই চিন্তায় চিন্তায় আমাদের দিন অতিবাহিত হতে থাকে। কিন্তু আমরাও পারি আমাদের ভাগ্য বিচার করতে। তাহলে শিখে নিন আজকের এই লেখাটি দেখে হাতের রেখা দেখে ভাগ্য বিচার করুন, ও নিজের ভাগ্য নিজেই জানুন ।

হাতের রেখা দেখে ভাগ্য বিচার

১. গ্ৰহ চেনা:-

সর্বপ্রথম লক্ষ্য করবেন হাতের আঙুল গুলো সোজা আছে কিনা।প্রথমে হাতের পাঞ্জাকে নিজের মুখের সম্মুখে সোজাসুজি ধরুন। এবার দেখুন কোনো আঙুল, কোনো আঙুলের দিকে বাঁকা আছে কিনা। তর্জনীর আঙুলকে বৃহস্পতির আঙুল বলা হয়, মধ্যমা আঙুলটিকে শনির আঙুল বলা হয়, অনামিকার আঙুলটিকে রবির আঙুল বলা হয়। কনিষ্ঠা আঙুলটিকে বুধের আঙুল বলা হয়।

২. আঙুলের আকৃতি:-

অনেক সময় আমাদের হাতের বৃহস্পতির আঙুলটি শনির আঙুলের দিকে বাঁকা হয়। এবং শনির আঙুলে রবির আঙুলটি বাঁকা হয়। কিন্তু বুধের আঙুল সোজা হয়। আর বৃদ্ধাঙ্গুললিটিও সোজা। হাতের রেখা দেখে ভাগ্য বিচারের মাধ্যমে আপনারা সহজেই লক্ষ্য করতে পারবেন রবির আঙুলটি যেহেতু শনির দিকে বাঁকা, তাহলে আপনারা ধরে নিতে পারেন রবি শনির দ্বারা ক্লিষ্ট। তারমানে আপনার হাতে রবিটা খারাপ। এভাবেই আপনারা নিজের ভাগ্য নিজে জানুন ও বুঝুন।

৩. গ্ৰহের অবস্থান:-

এবার বৃহস্পতির আঙুলটি শনির দিকে বাঁকা। অর্থাৎ বৃহস্পতি শনির দ্বারা আকৃষ্ট। মানে শনি দ্বারা বৃহস্পতি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। তাহলে ধরে নেওয়া যায় বৃহস্পতি শনির সাথে পেরে উঠছেনা।
আমাদের হাতে মূলতঃ নয়টি গ্ৰহ। যেমন বৃহস্পতি, শনি, রবি, বুধ, মঙ্গল, চন্দ্র, শুক্র,রাহু ও কেতু।
এবার দেখবেন হাতের কোনো ক্ষেত্রটি ডাবা বা নীচু সেই সঙ্গে অমসৃণ রেখা বা কালচে আভা যুক্ত। এমনকি হাতের কোনো ক্ষেত্রে যদি তিল বা কাটাকুটি চিহ্ন থাকে, তাহলে ধরে নিতে যাবে যে হাতের ওই ক্ষেত্রটি খারাপ। তাহলে সেই খারাপ ক্ষেত্রটির প্রতিকার আবশ্যক।

৪. প্রতিকার :-

প্রতিকারের জন্য আমাদের কিছু পদক্ষেপ মেনে নিতে হবে। আমাদের হাতের কোনো গ্ৰহ খারাপ হতেই পারে। এবার বুঝতে হবে যে আমরা ঠিক কী করবো! একটি গ্ৰহ খারাপ সেই গ্ৰহটিকে আমরা প্রতিকার দেবো, নাকি পাশের ভালো গ্ৰহটিকে আরো ভালো করবো! এভাবেই আপনারা একটু একটু করে নিজের হাতের রেখা দেখে ভাগ্য বিচার করতে পারবেন।

আরও পড়ুন – বাংলা নববর্ষে এই ৫ রাশির জাতক জাতিকার ভগবান বিষ্ণুর কৃপা তে জীবন সাফল্যময় হয়ে উঠবে

৫. জ্যোতিষশাস্ত্রের মত :-

জ্যোতিষশাস্ত্র মতে দুটি হলো পথ। একটি হলো ভালো গ্ৰহকে আরো ভালো করা, ও দ্বিতীয়টি হলো খারাপ গ্ৰহকে ভালো করা। কিন্তু এই ক্ষেত্রে শনি রাহু কেতু ও মঙ্গল এই চারটি গ্ৰহ খারাপ হলে, তার প্রতিকার করতে গেলে দেখা যাবে একটি গ্ৰহকে চাঙ্গা করতে গিয়ে বাকি পাঁচটি গ্ৰহ দুর্বল হয়ে যাচ্ছে।


যেমন ধরুন জন্মকুন্ডলিতে দেখবেন রাহু পঞ্চম,সপ্তম,নবম ও দ্বাদশে দৃষ্টি দেয়। রাহুর অবস্থান অপেক্ষা রাহুর দৃষ্টি বেশি ভয়ঙ্কর।


এই পরিপ্রেক্ষিতে দেখতে হবে সেই ব্যক্তির জন্মকুষ্ঠিতে পঞ্চম ক্ষেত্রে দৃষ্টি পড়েছে কিনা অথবা শুভ লগ্নে দৃষ্টি পড়েছে কিনা এমনকি ভাগ্য স্থানে দৃষ্টি পড়েছে কিনা অথবা দ্বাদশ বা ব্যয়ের ঘরে দৃষ্টি পড়েছে কিনা। যদি ব্যয়ের ঘরে রাহুর দৃষ্টি পড়ে তাহলে রাহুর প্রতিকার করলে ব্যয়ের মাত্রা বাড়বে। তাই রাহুর গোমেদ বা নীলা পড়ার আগে খোঁজ খবর নিয়ে অভিজ্ঞ জ্যোতিষীর কাছে যান এবং তাদের পরামর্শ নিয়ে তবেই এই পাথর দুটি পরিধান করবেন। এই পদ্ধতিতে গেলে তবেই নিজের ভাগ্য নিজের জানা সম্ভব ।


অনন্যা গ্ৰহের ক্ষেত্র যদি খারাপ হয়, যেমন বুধ, রবি, বৃহস্পতি, মঙ্গল, চন্দ্র, কেতু এই পাঁচটি গ্ৰহ যদি খারাপ হয়, তাহলে আপনারা সেই গ্ৰহের প্রতিকার পরিধান করতে পারেন।
কিন্তু রাহু ,শনি ও শুক্রের প্রতিকার পরার আগে একটু ভেবে নেবেন।
শুক্র শক্তিশালী হলে গোপন সম্পর্ক, মামলা মোকদ্দমা , যশ, নাম, মর্যাদা নষ্ট হতে পারে।
উল্টোদিকে শনিকে চাঙ্গা করে তুললে যদি অন্যান্য শুভ গ্ৰহগুলি যদি দুর্বল হয়ে যায়, তাহলে খুবই মুশকিলের বিষয়। যেমন ধরুন শনির শত্রু রবি; রবি উদিত না হলে যেমন দিন হয়না, তেমন শনির প্রতিকার নিলে রবি যদি অস্ত যায় তাহলে জীবনের সফলতা আসবে কিভাবে। অর্থাৎ জীবনটা আলোকিত হবে কীভাবে!

অতএব নিজের হাতের রেখা দেখে ভাগ্য বিচার, নিজের ভাগ্য নিজে জানুন এটি অবশ্যই শিখুন, কিন্তু প্রতিকারের সময় অর্থাৎ তিনটি গ্ৰহের ক্ষেত্রে যেমন শনি, রাহু ও শুক্রের ব্যাপারে কোনো রত্ন পরার আগে কোনো অভিজ্ঞতা সম্পন্ন জ্যোতিষীর কাছে অবশ্যই যান ও পরামর্শ নিন।
আমরা লেখার মাধ্যমে আপনাদের এটুকুই বলতে যাই হাতের রেখা দেখে ভাগ্য বিচার, নিজের ভাগ্য নিজে জানুন অর্থাৎ আপনার হাতের কোনো ভুল বিচার হলে আপনি যেন অন্তত সেই ভুলকে বুঝতে পারেন। এবং তৎক্ষণাৎ সেই ব্যক্তিকে বর্জন করতে পারেন।

Leave a Reply

Top