You are here
Home > Don't Miss > শরীর ও স্বাস্থ্য > আমলকির উপকারিতা: জানুন আমলকির ৪ রকমের গুনাবলী

আমলকির উপকারিতা: জানুন আমলকির ৪ রকমের গুনাবলী

আমলকির উপকারিতা

আমলকি মানুষের শরীরে সমস্ত উপকারী ভেষজের মধ্যে এক অনন্য দৃষ্টান্ত। কেউ যদি প্রত্যেক দিন একটি করে গোটা আমলকি খেতে পারে তবে ধীরে ধীরে আমলকির উপকারিতা নজরে আসবে। অনেক রোগ ব‍্যধি তাকে ছুঁতেও পারবে না। এই ফলটি অনেকে অনেক রকম করে খান কেউ টুকরো করে কেটে খান, কেউ গুড়ো করে শুখিয়ে খান, কেউ আবার কেটে তা শুখিয়ে নুন দিয়ে খান, আবার সেদ্ধ করে খাওয়া যায় এই ফল। তবে কাঁচা আমলকি খাওয়ার উপকারিতা অনেক বেশি। আগেই বললাম অনন্য ভেষজ এটি, তাহলে চলুন জেনে নিই কি কি গুনাবলীর জন্য আমলকিকে আমরা অনন্য বলে থাকি।

এবার তাহলে জেনে নেওয়া যাক আমলকির প্রতিটি ধরন কীভাবে শরীরের কোন কোন উপকারে লাগে।

  • আমলকি গুড়োর উপকারিতা
  • আমলকির রসের উপকারিতা
  • শুকনো আমলকির উপকারিতা
  • আমলকি বীজের উপকারিতা

এবার এই উপকারিতা গুলি বিশ্লেষণের মাধ্যমে আমলকির গুণাগুণ বর্ণনা করা যাক:

১)আমলকি গুড়োর উপকারিতা:

আলসার বা গ্যাস্ট্রিকের মতো বেদনাদায়ক রোগে অত্যন্ত ফল দায়ক হল আমলকি। আমলকি গ্যাসের সমস্যা সমাধান করতে খুবই দ্রুততার সাথে কাজ করে। তাই প্রত্যহ একটি করে আমলকি খাওয়া উচিত। সলিউবল ফাইবার যা কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে সাহায্য করে তা প্রচুর পরিমাণে আমলকিতে পাওয়া যায়। দৃষ্টি শক্তি বৃদ্ধি করতে আমলকি খুবই অপরিহার্য একটি উপাদান।আমলকি হার্টের ক্ষেত্রে উপকারী, কারণ আমলকির উপকারিতা হার্টের ব্লক আটকায় এবং কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণে রাখে। ব্লাড সুগার নিয়ন্ত্রণ করে এই আমলকির গুড়ো।

২) আমলকির রসের গুণগত উপকারিতা:

আমলকির রস শীতকালীন সমস্ত রোগের উপশমে সাহায্য ক‍রে। আমলকিতে আছে পৌষ্টিক উপাদান তাই মধুর সাথে মিশিয়ে খেলে শীতকালীন ব্যধি আর কাবু ক‍রতে পারবে না। আমলকির রস চুল ও ত্বকের জন্য খুব উপকারী। আমলকির রস চুলে লাগালে চুলের ঘনত্ব বাড়ে এবং চুল ঘন কালো হয় এবং চুলের গোড়া শক্ত করে। ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করে আমলকির রস। ব্রঙ্কাইটিস ও অ্যজমা তেও এই রস খুব উপকারী। এছাড়াও, ফুসফুসের শক্তি বাড়িয়ে আরও শক্তিশালী করে তোলে আমলকি। লোহিত কনিকাকে সক্রিয় করে তোলে আমলকির রস অর্থাৎ এটি শরীরে হিমোগ্লোবিনের মাত্রা বাড়িয়ে তোলে।

৩)শুকনো আমলকির উপকারিতা:

আমলকির উপকারিতা শুধুমাত্র কাঁচা আমলকিতে নয় শুকনো আমলকিতেও পাওয়া যায়। আমলকি যেহেতু বছরের সব সময় পাওয়া যায় না তাই এই ফলকে স্টোর করে রাখতেই হয়। শুকনো আমলকি অনিদ্রা জনিত রোগ নিরাময়ে সক্ষম। এটি শুকনো করে বেটে মাখন বা ঘি মিশিয়ে মাথায় লাগালে তাড়াতাড়ি ঘুম আসে।এছাড়া রোজ দুবেলা খাবার পর শুকনো আমলকি খেলে হজম ভালো হয় তাই অ্যাসিডিটি অনেক কম হয়, তাই যাদের অ্যাসিডিটির সমস্যা আছে তাদের কাছে শুকনো আমলকি উপকারী। এছাড়াও কফ, বমি, গা গুলিয়ে ওঠা প্রভৃতির প্রতিশেধক আমলকি থেকেই আমরা পেয়ে থাকি।এছাড়াও কোষকে নতুনভাবে গড়ে তুলতে শুকনো আমলকি অনবদ্য।

৪) আমলকির বীজের উপকারিতা:

আমলকির উপকারিতা শুধু ফলে নয় তার বীজের মধ্যেও নিহত আছে যা অবিশ্বাস্য লাগলেও এটি সম্পূর্ণ সত্যি। আমলকির বীজ নিঃশ্বাসের দূর্গন্ধ দূর করতে সাহায্য করে। এই বীজের গুড়ো জলে মিশিয়ে খেলে নিঃশ্বাসের দূর্গন্ধ থেকে চটজলদি মুক্তি পাওয়া যায়। শরীরকে ঠাণ্ডা রাখতে আমলকির বীজ খুব উপকারী। আমলকির মধ্যে যে সমস্ত উপাদান থাকে তা অনায়াসে শরীর ঠাণ্ডা রাখে বলে পেটের সমস্যা এতে সম্পূর্ণ দূর হয়ে যায়। পেট যেহেতু সব রোগের উৎস তাই পেট ভালো থাকায় অনেক রোগকে আমলকির বীজ অনায়াসে এমনই সারিয়ে তোলে অজান্তেই। চুল পাকা আটকাতে আমলকি খুব উপকারী। আমলকি যেহেতু টক ফল তাই এই ফলের বীজ স্বাদ গ্রহণ করার ক্ষমতাও বারিয়ে তোলে।

আরও পড়ুন – লেবুর উপকারিতা এবং গুণাগুণ সংক্রান্ত সকল কিছু জানুন এক নিমেষে

শুধু দামি জিনিস নয় আমাদের আশেপাশে থাকা নানান ছোট জিনিস দিয়ে রোজকারের অনেক কিছুর উপশম সম্ভব এবং বড়ো রোগ প্রতিরোধ করাও সম্ভব। তাহলে আপনারাই বলুন আমলকির উপকারিতা ভেষজের সর্বশ্রেষ্ঠ হল কিনা।
আশা করি আমাদের প্রচেষ্টা আপনাদের একটু হলেও সাহায্য করছে। তাহলে জানান কেমন লাগল এই লেখনী আর বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন।

Leave a Reply

Top